ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

সিলেটে ভ্যাকসিন নিবন্ধনে প্রবাসীদের ভোগান্তি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৪০ ঘণ্টা, জুলাই ২, ২০২১
সিলেটে ভ্যাকসিন নিবন্ধনে প্রবাসীদের ভোগান্তি ছবি: মাহমুদ হোসেন

সিলেট: করোনাকালে বেকায়দায় পড়েছেন দেশে অবস্থানরত প্রবাসীরা। করোনার ভ্যাকসিন নিতে নিবন্ধন করতে গিয়ে বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন তারা।

শুক্রবার (২ জুলাই) সকাল ৯টা থেকে সিলেট জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসে ভিড় করেন প্রবাসীরা। অফিসের প্রধান ফটক বন্ধ দেখে অনিশ্চয়তায় পড়েন দূর-দূরান্ত থেকে আগতরা । কর্মকর্তারা অফিস খোলেন সকাল ১১ টার দিকে। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ভোগান্তিতে পড়া প্রবাসীরা।

জানা গেছে, বিদেশগামী কর্মীদের টিকার রেজিস্ট্রেশন করতে বিকাশের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট দফতরে ২০০ টাকা ফি দিতে হয়। সেই ফি দিয়ে সহস্রাধিক প্রবাসী কঠোর লকডাউনের মধ্যেও করোনা ভ্যাকসিন পেতে রেজিস্ট্রেশনের জন্য এসেছেন জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসে। কিন্তু সময়মতো কাজ শুরু না হওয়ায় তাদের ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

সিলেটের সীমান্তবর্তী এলাকা কোম্পানীগঞ্জ ও জকিগঞ্জ থেকে আগত দুই বিদেশ গমনেচ্ছু নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, আমরা প্রবাসীরা যেন মানুষের কাতারে পড়ি না। সকাল থেকে একটা অফিসে এসে প্রতীক্ষায় থেকে মানুষ হিসেবে ন্যূনতম মূল্যায়ন পাচ্ছি না। বিদেশে গিয়ে আমরাই তো রেমিটেন্স পাঠাই। কিন্তু দেশে এসে আমাদের চেয়ে অসহায় কেউ থাকে না। সকাল ৯টায় রেজিস্ট্রেশন শুরুর কথা থাকলেও ১১টায়ও অফিস বন্ধ ছিল। নিজেদের নাম বললে আামদের ঝামেলায় পড়তে হবে। অনেকের ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পথে। এখন ভ্যাকসিন না নিলে বিদেশে যাওয়া কঠিন হয়ে পড়বে।

সরেজমিন দেখা গেছে, সরকারি ওই দফতরের প্রধান ফটকের গেট বন্ধ থাকায় বৃষ্টির মধ্যেও বাইরে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন প্রবাসীরা। গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে ভিজে অনেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন। অনেকে লাইনে না দাঁড়িয়ে ভিড় করছেন ফটকের কাছে। কঠোর লকডাউনে অনেককেই আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের জেরার মুখে পড়তে হয়েছে। তবে তাদের প্রয়োজনের তাগিদ বুঝে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তাদের বহনকারী যানবাহনে আসতে দিয়েছে।

এ বিষয়ে সিলেট জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের সহকারী পরিচালক মীর কামরুল হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, আমরা যথাসময়েই অফিসে এসেছি। তবে নেটওয়ার্কের সমস্যার কারণে রেজিস্ট্রেশন কাজ শুরুতে দেরি হচ্ছিল।

তিনি বলেন, করোনার এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে বিদেশ গমনেচ্ছু অসংখ্য প্রবাসী এসে কার্যালয়ের সামনে ভিড় করছেন। নিজেদের সুরক্ষায় তাদের সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছি। তাছাড়া কার্যালয়ে স্থান সঙ্কট গেট বন্ধ রেখেছি। যে যার মতো ফটকের বাইরে অপেক্ষা করেছেন।

মীর কামরুল হোসেন আরও বলেন, সৌদি ও দুবাইগামীদের ইংল্যান্ডের তৈরি করোনা ভ্যাকসিন নিতে হবে। অন্য দেশেরটা এ দুই দেশ গ্রহণ করে না।

বিদেশগামী কর্মীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিকে সুরক্ষা অ্যাপে রেজিস্ট্রেশনের সুবিধার্থে শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়েছে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) রেজিস্ট্রেশন। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রীর নির্দেশে সিলেটসহ দেশের ৪২টি জনশক্তি অফিস, ৯টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এবং ১টি মেরিন টেকনোলজি ইনস্টিটিউটে অথবা ‘আমি প্রবাসী’ অ্যাপে বিএমইটির এই রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম চলবে।

প্রবাসী কর্মীদের কর্মস্থলে গমন নিরাপদ ও ঝুঁকিমুক্ত করতে বিদেশগামী কর্মীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

বিএমইটির ডাটাবেজে নিবন্ধিত কর্মীরা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রাপ্তির লক্ষ্যে Surokkha Apps বা www.surokkha.gov.bd এর মাধ্যমে জরুরিভাবে টিকা নিতে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। surokkha App-এ রেজিস্ট্রেশন সফল হলে মোবাইল ফোনে এসএমএস-এর মাধ্যমে টিকা সেন্টার ও টিকার তারিখ জানা যাবে।

কোভিড-১৯ টিকা প্রদান ও সনদায়ন কার্যক্রম সম্পূর্ণ ডিজিটালাইজড। সে কারণে surokkha App বা www.surokkha.gov.bd এ নিবন্ধিত হয়ে টিকা কেন্দ্র ও তারিখ সংক্রান্ত মেসেজ না পাওয়া পর্যন্ত বিদেশগামী কর্মীদের কোনো হাসপাতাল, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়, বিএমইটি বা জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসে স্বাস্থ্যবিধি ভঙ্গ করে জমায়েত হয়ে টিকা নেওয়ার সুযোগ নেই।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩৫ ঘণ্টা, জুলাই ০২, ২০২১
এনইউ/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa