ঢাকা, রবিবার, ১ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

কিশোরগঞ্জে নতুন আরও ৯৬ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ১

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২২৯ ঘণ্টা, জুলাই ২, ২০২১
কিশোরগঞ্জে নতুন আরও ৯৬ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ১

কিশোরগঞ্জ: গত ২৪ ঘণ্টায় কিশোরগঞ্জে নতুন করে ৯৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৫৪ জন, ভৈরব উপজেলায় ১৭ জন, করিমগঞ্জে ৭ জন, কটিয়াদীতে ৫ জন, কুলিয়ারচর ৫ জন, তাড়াইলে ৩ জন, হোসেনপুরে ২ জন, বাজিতপুরে ২ জন ও পাকুন্দিয়া উপজেলায় একজন রয়েছেন।

 

এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্ত রোগী সংখ্যা ৬ হাজার ৫৪ জন দাঁড়িয়েছে।  

একই সময়ে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নতুন করোনা রোগী ১৫ জন। ছাড়পত্র পেয়েছেন ১৫ জন এবং আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন ৫ জন। এ হাসপাতালে সর্বশেষ মোট ৮৫ জন করোনায় আক্রান্ত ও করোনার সন্দেহজনক রোগী ভর্তি রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (০১ জুলাই) দিনগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে বাংলানিউজকে এ তথ্য জানান কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৮ জুন, ২৯ জুন ও ৩০ জুন (আংশিক নমুনা) কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজের আরটি-পিসিআর ল্যাব হতে (প্রি আইসোলেশনে ভর্তিকৃত জরুরী রোগীসহ) ১৮৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পুরাতন রোগী ১৬ জন ও অন্য জেলার ৩ জনসহ মোট ৯১ জনের পজিটিভ শনাক্ত হয়। এছাড়া গত ৩০ জুন বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজের আরটি-পিসিআর ল্যাবে ৮৮ জনের মধ্যে একজনের পজিটিভ এবং কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ৪ জন, পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২ জন, কুলিয়ারচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৭ জন ও ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩০ জনসহ মোট ৪৩ জনের রেপিড এন্টিজেন নমুনা পরীক্ষায় ৪ জনের পজিটিভ এসেছে।  

এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩৫ জন। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৩৫ জনই সুস্থ হয়েছেন। এছাড়া অন্য উপজেলাগুলোতে কেউই সুস্থ হননি। এ নিয়ে করোনা থেকে সুস্থ রোগীর সংখ্যা ৫ হাজার ১৪৩ জন। করোনা আক্রান্ত হয়ে বাজিতপুর উপজেলায় একজনসহ জেলায় এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করেছেন ৮৯ জন।  

বর্তমানে জেলায় করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৮২২ জন। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৫৭৩ জন, ভৈরব উপজেলায় ৬৩ জন, কটিয়াদীতে ৫১ জন, পাকুন্দিয়ায় ২৬ জন, কুলিয়ারচরে ২৬ জন, তাড়াইলে ২৩ জন, করিমগঞ্জে ২১ জন, বাজিতপুরে ১৯ জন, হোসেনপুরে ৯ জন, ইটনায় ৬ জন ও নিকলী উপজেলায় ৫ জন রয়েছেন।  

জেলায় বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৭৭১ জন রোগী। আর হাসপাতালের আইসোলেশনে রয়েছেন ৫১ জন রোগী। এছাড়াও আইসোলেশনে থাকা নেগেটিভ/সাসপেক্টটেড রোগীর সংখ্যা ৩৪ জনসহ মোট ৮৫৬ জন রোগী রয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ০২২৭ ঘন্টা, জুলাই ০২, ২০২১
এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa