ঢাকা, শনিবার, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ১৫ মে ২০২১, ০২ শাওয়াল ১৪৪২

জাতীয়

দৌলতপুর সীমান্তে সৎ ভাইকে গলা কেটে হত্যা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ১১, ২০২১
দৌলতপুর সীমান্তে সৎ ভাইকে গলা কেটে হত্যা

কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে মাদক সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ফামিদ (৪০) নামে এক মাদক বিক্রেতাকে গলা কেটে হত্যা করেছেন তার সৎ ভাই মিলন।

রোববার (১১ এপ্রিল) সকাল ৮টার দিকে উপজেলার প্রাগপুর ইউনিয়নের সীমান্ত সংলগ্ন জামালপুর গ্রামে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে।

নিহত ফামিদ জামালপুর গ্রামের আব্দুস ছাত্তার ওরফে নান্দু ডাকাতের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, সীমান্তের শীর্ষ মাদক চোরাকারবারী ও সন্ত্রাসী ফামিদ সকালে নিজ বাড়ির পাশে এনামুলের দোকানে বসে চান পান করছিলেন। এসময় পেছন থেকে সৎ ভাই মিলন ধারাল হাঁসুয়া দিয়ে ফামিদের গলায় কোপ দিলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে তার মৃত্যু নিশ্চিত করে মিলন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান।  

দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) শাহাদত হোসেন জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, মাদক ব্যবসা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে তাকে হত্যা করেছেন সৎ ভাই মিলন। খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ফামিদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

তিনি আরও জানান, ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে এবং মিলনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।  ফামিদ হত্যা মামলায় ভারতে ১৪ বছর কারাভোগের পর ২০১৯ সালে দেশে ফিরে আবার মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েন ফামিদ। এছাড়া তার বিরুদ্ধে একাধিক ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে। এ নিয়ে পরিবারের লোকজন ও স্থানীয় অতিষ্ঠ ছিলেন। তাকে ধরতে পুলিশ একাধিকবার সীমান্তে অভিযান চালিয়ে ব্যর্থ হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪১ ঘণ্টা, এপ্রিল ১১, ২০২১
এসআই


 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa