ঢাকা, বুধবার, ২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১৮ মহররম ১৪৪৪

জাতীয়

আল জাজিরার প্রতিবেদন ভ্রান্ত ও ভিত্তিহীন: আইএসপিআর

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২, ২০২১
আল জাজিরার প্রতিবেদন ভ্রান্ত ও ভিত্তিহীন: আইএসপিআর

ঢাকা: কাতারভিত্তিক টেলিভিশন নেটওয়ার্ক আল জাজিরায় ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার্স মেন’ শিরোনামে প্রচারিত প্রতিবেদনকে ভ্রান্ত ও ভিত্তিহীন বলে তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ সেনা সদর দপ্তর।

মঙ্গলবার (০২ জানুয়ারি) রাতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) সহকারী পরিচালক রাশেদুল আলম খানের স্বাক্ষর করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রকৃতপক্ষে এটি এক স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর একটি সিক্যুয়েল, যা সাম্প্রতিক সময়ে দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করে যাচ্ছে।

এই প্রতিবেদনের মন্তব্যকারীরা হলেন, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাজা ভোগ করা ডেভিড বার্গম্যান, মাদকাসক্তির অভিযোগে বাংলাদেশ সামরিক একাডেমি থেকে বহিষ্কার হওয়া প্রাক্তন ক্যাডেট জুলকারনাইন সের খান (প্রতিবেদনে সামি হিসাবে চিত্রিত) এবং অখ্যাত নেত্র নিউজের প্রধান সম্পাদক তাসনিম খলিল।

এটি স্পষ্ট নয় যে, কীভাবে আল-জাজিরার মতো একটি আন্তর্জাতিক নিউজ চ্যানেল দাগী অপরাধীদের সাথে নিজেদের এই ধরনের উদ্দেশ্যমূলক সংযুক্ত করতে পারে। অশুভ-অনুপ্রাণিত এবং অর্পিত ব্যক্তিত্বদের সংযোগ তাদের অতীতের প্রমাণপত্রাদি স্পষ্টভাবে দৃশ্যমান হয়েছে।

ভিডিওটি প্রযুক্তি ব্যবহার করে বিভিন্ন সরকারি, সামাজিক এবং ব্যক্তিগত ইভেন্টগুলির ক্লিপ দিয়ে একসঙ্গে তৈরি করা হয়েছে। বেশ কয়েকটি সংযোগ বিচ্ছিন্ন ইভেন্ট ব্যাকগ্রাউন্ডে ভয়েস দিয়ে একসাথে এডিট করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ইসরায়েল থেকে মোবাইল ইন্টারসেপ্টর ডিভাইস সংগ্রহের বিষয়ে প্রতিবেদনে প্রদত্ত ভ্রান্ত তথ্যের নিন্দা জানিয়েছে।

সত্যটি হলো জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে মোতায়েনের কারণে অন্যতম এক জঙ্গির জন্য হাঙ্গেরি থেকে সরঞ্জাম সংগ্রহ করা হয়েছিল। সরঞ্জামগুলির মধ্যে কোথাও লিখিত ছিল না যে, এগুলি ইসরায়েলি উৎস। ইসরায়েলের কাছ থেকে প্রতিরক্ষা সহযোগিতা সংগ্রহের সুযোগ নেই, যেহেতু বাংলাদেশের সাথে এই দেশের কোনো আনুষ্ঠানিক কূটনৈতিক সম্পর্ক নেই।

দেশের বিকাশ ও বিকাশের পথে বাধা সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রতিবেদককে বিভিন্ন সরকারি সংস্থাগুলির মধ্যে সম্প্রীতি ভঙ্গ করার একটি গোষ্ঠীর প্রয়াস হিসাবে বিবেচনা করছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

বর্তমানে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী চেইন অব কমান্ডের অধীনে সবচেয়ে সুশৃঙ্খল এবং সংবিধান ও সরকারের অনুগত।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সর্বদা বাংলাদেশ সরকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিল এবং থাকবে এবং আমাদের প্রিয় মাতৃভূমির দেশ গঠনের প্রয়াসে অবদান রাখবে।

বাংলাদেশ সময়: ২০১৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০২, ২০২১
এমআইএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa