ঢাকা, রবিবার, ২২ ফাল্গুন ১৪২৭, ০৭ মার্চ ২০২১, ২২ রজব ১৪৪২

জাতীয়

সরকারি কর্মচারী সংহতি পরিষদের মহাসচিবের মুক্তি দাবি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৪, ২০২১
সরকারি কর্মচারী সংহতি পরিষদের মহাসচিবের মুক্তি দাবি

ঢাকা: বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী সংহতি পরিষদের মহাসচিব মো. আমজাদ আলী খানের মুক্তি দাবি করেছেন সংগঠনটির সভাপতি নিজামুল ইসলাম ভূইয়া মিলন।

বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুর ১২টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান তিনি।

লিখিত বক্তব্যে নিজামুল ইসলাম বলেন, ঢাকা জিপিও পোস্টাল অপারেটর, বাংলাদেশ পোস্টম্যান ও জাতীয় শ্রমিক লীগ নির্বাহী পরিষদের সদস্য আমজাদ আলী খানকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও ষড়যন্ত্রমূলকভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমি অবিলম্বে তার মুক্তি দাবি করছি।

তিনি বলেন, আমজাদ আলী খান বাংলাদেশ পোস্টম্যান ও ডাক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক থাকার কারণে ডাক বিভাগের বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে জোড়ালো ভূমিকা রেখে আসছিলেন। জৈব সার কোম্পানির মালিক ফজলুল হকের সঙ্গে সিনিয়র পোস্ট মাস্টারের যোগসাজশ রয়েছে। তারা শুক্রবার ও শনিবার তাদের কর্মীদের জিপিওতে ট্রেনিং করানোর কারণে বিভিন্ন সভায় আমজাদ আলী প্রতিবাদ করেন। এই অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় সিনিয়র পোস্ট মাস্টারের সঙ্গে বিরোধ সৃষ্টি হয়।

নিজামুল আরও বলেন, গত ৩ জানুয়ারি রোববার সিনিয়র পোস্ট মাস্টার খন্দকার শাহানুর সাব্বির বিকেল সাড়ে তিনটায় অফিস চলাকালে আমজাদ আলীকে ডেকে র‌্যাব-৩ এর গাড়িতে তুলে দেন। পরবর্তীতে র‌্যাব-৩ জানায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমি এই গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানাই এবং অবিলম্বে তার মুক্তি দাবি করছি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি ওয়ারেছ আলী, বাংলাদেশ পোস্টম্যান ও ডাক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি খায়ের আহমেদ মজুমদার ও বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী সংহতি পরিষদের কার্যনির্বাহী পরিষদের প্রতিনিধিরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৪, ২০২১
এমএইচ/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa