ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

দুর্ঘটনা প্রতিরোধে মহাসড়কে নসিমন-করিমন চলাচল বন্ধের সুপারিশ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩১, ২০২০
দুর্ঘটনা প্রতিরোধে মহাসড়কে নসিমন-করিমন চলাচল বন্ধের সুপারিশ

ঢাকা: সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে রাজনৈতিক সব প্রতিবন্ধকতা দূর করে সড়ক ও মহাসড়কে নসিমন, করিমন, ইঞ্জিনচালিত রিকশা ইত্যাদি চলাচল বন্ধ করার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি।

বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) একাদশ জাতীয় সংসদের সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির অষ্টম বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়।

কমিটির সভাপতি মো. একাব্বর হোসেনের সভাপতিত্বে সংসদ ভবনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

কমিটির সদস্য সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের (ভার্চ্যুয়ালভাবে), এনামুল হক, মো. আবু জাহির, রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিক, মো. ছলিম উদ্দীন তরফদার, শেখ সালাহউদ্দিন, সৈয়দ আবু হোসেন ও রাবেয়া আলীম বৈঠকে অংশ নেন।

বৈঠকে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে স্থানীয় কিংবা রাজনৈতিক সব প্রতিবন্ধকতা দূর করে সড়ক ও মহাসড়কে নসিমন, করিমন, ইঞ্জিনচালিত রিকশা ইত্যাদি চলাচল বন্ধ করার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য পরবর্তী বৈঠকে বিভাগীয় কমিশনার, বিভাগীয় ডিআইজি ও হাইওয়ে পুলিশ কর্তৃপক্ষকে উপস্থিত থাকার জন্য কমিটি সুপারিশ করে।

এতে সপ্তম সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তসমূহের বাস্তবায়ন অগ্রগতি, পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পের সার্বিক কার্যক্রমের সর্বশেষ অগ্রগতির প্রতিবেদন উপস্থাপন, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর এবং সেতু বিভাগ কর্তৃক টেন্ডার নিয়ে বিশদ আলোচনা করা হয়।

বৈঠকে এরইমধ্যে ধলেশ্বরী সেতুতে টোল আদায়ের বিষয়ে গঠিত তদন্ত কমিটি বাতিলপূর্বক ধলেশ্বরী সেতুসহ দেশের সব সেতুতে টোল আদায়ে অনিয়ম দুর্নীতি/প্রাপ্ত অভিযোগের বিষয় তদন্তপূর্বক একটি প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য কমিটির সদস্য এনামুল হককে আহ্বায়ক করে দুই সদস্য বিশিষ্ট একটি সংসদীয় সাব কমিটি গঠন করা হয় এবং আগামী তিন মাসের মধ্যে একটি তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়।

এতে সড়ক পরিবহন ও সেতু বিভাগ একই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে একাধিক টেন্ডার পাওয়ার বিষয়টি তদন্তপূর্বক একটি প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য কমিটির সদস্য শেখ সালাহউদ্দিনকে আহ্বায়ক করে দুই সদস্য বিশিষ্ট একটি সংসদীয় সাব কমিটি গঠন করা হয় এবং আগামী দুই মাসের মধ্যে একটি তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে বঙ্গবন্ধু সেতু এলাকায় অবস্থিত রিসোর্ট ইজারা দেওয়া তথা বঙ্গবন্ধু সেতুর আনন্দ পার্ক, পিকনিক স্পট ও বাগান (অ্যাগ্রিকালচার), জমি ও অন্য অবকাঠামো ব্যবস্থাপনা বিষয়ে তদন্তপূর্বক একটি প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য কমিটির সদস্য রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিককে আহ্বায়ক করে দুই সদস্য বিশিষ্ট একটি সংসদীয় সাব কমিটি গঠন করা হয় এবং আগামী দুই মাসের মধ্যে একটি তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়।

এতে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিআরটিএ ও বিআরটিসির চেয়ারম্যান, পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক, বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান টানেল প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক, বিটিসিএ’র নির্বাহী পরিচালক, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলীসহ সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩১, ২০২০
এসকে/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।