ঢাকা, সোমবার, ৫ মাঘ ১৪২৭, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

জাতীয়

ডেনমার্কের সঙ্গে বাণিজ্যিক অংশীদারিত্ব বাড়াতে চায় বাংলাদেশ

ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৫৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৪, ২০২০
ডেনমার্কের সঙ্গে বাণিজ্যিক অংশীদারিত্ব বাড়াতে চায় বাংলাদেশ বক্তব্য রাখছেন ডেনমার্কে বাংলাদেশের নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত আল্লামা সিদ্দিকী

ঢাকা: বাংলাদেশ ডেনমার্কের সঙ্গে বাণিজ্যিক অংশীদারিত্বকে নতুন উচ্চতায় পৌঁছাতে আগ্রহী বলে মন্তব্য করেছেন ডেনমার্কে বাংলাদেশের নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত আল্লামা সিদ্দিকী। কোপেনহেগেনে বাংলাদেশ দূতাবাসে আয়োজিত একটি বিজনেস নেটওয়ার্কিং সেমিনারে তিনি এ মন্তব্য করেন।

শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) ডেনমার্কের বাংলাদেশ দূতাবাস জানায়, দূতাবাস ও ডেনিশ ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদলের মধ্যে পারস্পারিক মিথস্ক্রিয়ার মাধ্যমে বাণিজ্য-বিনিয়োগে নতুন সুযোগ সৃষ্টির উদ্দেশ্যে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।  

করোনা পরিস্থিতি সত্ত্বেও দূতাবাসে অনুষ্ঠিত সেমিনারে সবুজ প্রযুক্তি ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি, ডেইরি, খাদ্য নিরাপত্তা, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, টেকসই নগরায়ন খাত, ডেনিশ চেম্বারসহ বিভিন্ন চেম্বারের সিইও ও প্রতিনিধিরা অংশ নেন।  

সেমিনারে রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও সম্ভাবনার ওপর একটি পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন।  

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের অব্যাহত ধারা উল্লেখ করতে গিয়ে তিনি উচ্চ প্রবৃদ্ধি, সামষ্টিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা, অভ্যন্তরীণ বাজারের ক্রম সম্প্রসারণ, আন্তজার্তিক কুটনীতিতে গঠনমূলক ভূমিকা ও সামাজিক স্থিতিশীলতার কথা উল্লেখ করেন।

আল্লামা সিদ্দিকী আরও উল্লেখ করেন, বাংলাদেশ সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উচ্চ আয়ের সুখী ও সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে দেখতে বদ্ধ পরিকর। বাংলাদেশে বাণিজ্য-বিনিয়োগের অপার সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে লাভবান হতে ডেনিশ বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ীদের প্রতি তিনি আহ্বান জানান। ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের সঙ্গে রাষ্ট্রদূতের স্বতঃস্ফূর্ত আলোচনা ও প্রশ্ন উত্তর পর্বের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।

বিগত বছরগুলোতে ডেনমার্কের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য-বিনিয়োগ আশাব্যঞ্জক হারে বেড়েছে। ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে ডেনমার্কে বাংলাদেশের রপ্তানির পরিমাণ ছিল ৭৩১.০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ডেনমার্ক থেকে আমদানির পরিমাণ ছিল ১২০.০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ডেনমার্ক ও বাংলাদেশের মধ্যে বিশেষ করে সবুজ প্রযুক্তি, ডেইরি, স্বাস্থ্যসেবা ও স্বাস্থ্য প্রযুক্তি, খাদ্য প্রযুক্তি ও ঔষধশিল্পে বাণিজ্যিক অংশীদারিত্ব বাড়ার বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দূতাবাসের কাউন্সিলর শাকিল শাহরিয়ার। সঞ্চালনা করেন দ্বিতীয় সচিব মেহেবুব জামান।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৪, ২০২০
টিআর/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa