ঢাকা, সোমবার, ৫ মাঘ ১৪২৭, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

জাতীয়

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সব প্রকল্প বাস্তবায়নের তাগিদ শিল্পমন্ত্রীর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০২০
নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সব প্রকল্প বাস্তবায়নের তাগিদ শিল্পমন্ত্রীর

ঢাকা: নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সব প্রকল্প বাস্তবায়নের তাগিদ দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন।  

তিনি বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন কার্যক্রমের ওপর দেশের সামগ্রিক অর্থনীতি অনেকটাই নির্ভর করে।

তাই করোনা পরিস্থিতির মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রকল্পের কাজগুলো দ্রুত শেষ করতে হবে।

রোববার (২৯ নভেম্বর) শিল্প মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ২০২০-২১ অর্থবছরের এডিপিভুক্ত উন্নয়ন প্রকল্পসমূহের বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ তাগিদ দেন।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব কে এম আলী আজমের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার।  

শিল্পমন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর তুলনায় ভালো অবস্থায় রয়েছে। আর্থ-সামাজিক বিভিন্ন সূচকের বাংলাদেশের অবস্থান ঈর্ষণীয়।  

এ সময় শিল্পমন্ত্রী মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে প্রকল্পগুলোর মনিটরিং কার্যক্রম আরও জোরদার করারও আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার সাভারে অবস্থিত চামড়া শিল্প নগরীর সমস্যাগুলো সমাধানে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দেন।

তিনি বলেন, বাফার গোডাউনসমূহের সংরক্ষিত সারের হিসাব যথাযথভাবে সংরক্ষণ করতে হবে। শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন শিল্পপ্রতিষ্ঠানসমূহের অব্যবহৃত ও বেহাত হওয়া জমির মালিকানা বুঝে নিতে শিল্প প্রতিষ্ঠানসমূহের ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের নির্দেশনা দেন তিনি।

সভায় জানানো হয়, ১৩ বাফার গোডাউন নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় যশোর, গাইবান্ধা,  শেরপুর ও নীলফামারীর বাফার গোডাউন ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে সমাপ্ত করা হবে। ইতিপূর্বে পঞ্চগড় ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে বাফার গোডাউন নির্মাণকাজ সমাপ্ত হয়েছে।

এছাড়া ৩৪টি বাফার গোডাউন নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ছয়টি বাফার গোডাউনের জমি অধিগ্রহণ পরবর্তী কার্যক্রম দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাবার নির্দেশনা দেন প্রতিমন্ত্রী।

সভায় আরও জানানো হয়, ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়া সার কারখানার নির্মাণ প্রকল্পের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। অ্যাকটিভ ফার্মাসিউটিক্যালস ইনগ্রেডিয়েন্টস (এপিআই) পার্কের অবকাঠামোগত অবশিষ্ট কাজ দ্রুত শেষ করে ও উদ্যাক্তাদের শিল্প কারখানা স্থাপনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দেওয়া হয়।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন শিল্প মন্ত্রণালয় এবং এর আওতাধীন দপ্তর-সংস্থাসমূহের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা, বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পসমূহের প্রকল্প পরিচালকরা ও নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রতিনিধিরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০২০
জিসিজি/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa