ঢাকা, রবিবার, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

জাতীয়

১৯৯ পিস ইয়াবাসহ আটক শ্রমিককে ছেড়ে দিল পুলিশ!

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৫৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৪, ২০২০
১৯৯ পিস ইয়াবাসহ আটক শ্রমিককে ছেড়ে দিল পুলিশ!

সিলেট: বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র অভিযানে ১৯৯ পিস ইয়াবাসহ আটক পরিবহণ শ্রমিক হারিছ আলীকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।

শনিবার (২৪ অক্টোবর) সকালে রুনু মিয়া নামে আরেক শ্রমিক জিম্মা নামায় ছেড়ে দেওয়া হয়।

জিম্মানামায় হারিছ আলীকে অসুস্থ দেখিয়ে ছাড়া হয়। জিম্মায় মুক্তি পাওয়া্ ওই শ্রমিককে দুপুর ১টার দিকে আদালত চত্বরে ঘুরাফেরা করতে দেখা যায়।

এর আগে শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) পৌনে ৮টার দিকে গোপন সংবাদে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার অতিরবাড়ি সালাউদ্দিন রেস্টুরেন্টের দক্ষিণ পাশ থেকে হারিছ মিয়াকে ১৯৯ পিস ইয়াবাসহ আটক করে বিজিবি। তাকে ছাড়িয়ে নিতে শ্রমিকরা রাতেই রাস্তা অবরোধ করে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে।

রাত ১১ টা ৫৫ মিনিটের দিকে হারিছ আলীকে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থানায় হস্তান্তর করে বিজিবি। এ ঘটনায় বিজিবি ১৯ ব্যাটালিয়ন সিলেটের হাবিলদার আওয়াল হোসেন বাদি হয়ে মাদক আইনে মামলা দায়ের করেন।

কিন্তু রাত পোহাতেই শ্রমিক নেতা হারিছ আলীকে দক্ষিণ সুরমা থানা থেকে আরেক শ্রমিক নেতা রুনু মিয়ার জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়। জিম্মাদার রুনু মিয়া দক্ষিণ সুরমা থানাধীন তেঁতলী ইউনিয়নের আহম্মদপুর গ্রামের মৃত আজর আলীর ছেলে। আর ইয়াবাসহ গ্রেফতার হওয়া হারিছ আলী (৪৫)পাশ্ববর্তী লালাবাজার ইউনিয়নের বাহাপুর গ্রামের মৃত মদরিছ আলীর ছেলে।

মামলার বাদি বিজিবি ১৯ ব্যাটালিয়ন সিলেটের হাবিলদার আব্দুল আওয়াল বাংলানিউজকে বলেন, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমরা হারিছ আলীকে আটক করে তার দেহ তল্লাশি করে ১৯৯ পিস ইয়াবা জব্দ করি। এরপর রাত ১১টা ৫৫ মিনিটে দক্ষিণ সুরমা থানায় হস্তান্তর করেছি। ইয়াবা ছাড়াও মামলায় আলামত হিসেবে একটি মোটরসাইকেল (সিলেট-হ-১৩-৫৬০৩), একটি মোবাইল ফোন, ২টি সিম কার্ড, ১টি মেমোরি ও নগদ ৬৯০ টাকাসহ ১ লাখ ৫৮ হাজার ৮৯০ টাকার মালামাল জব্দ দেখানো হয়।

এ বিষয়ে সিলেটর দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে রেখে জনভোগান্তি সৃষ্টি করেছিল। এ কারণে আদালতে হাজির করার শর্তে গ্রেফতারকৃত শ্রমিক নেতা হারিছ আলীকে জিম্মায় ছাড়া হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে এবং বিধি মোতাবেক তাকে জিম্মায় মুক্তি দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

শ্রমিক নেতা হারিছ আলী আটক ও তাকে মুক্তির দাবিতে শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) রাতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে শ্রমিকরা। থানা থেকে জিম্মায় ছেড়ে দেওয়ার পর ভোর সাড়ে ৪টার দিকে তারা অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫১ ঘন্টা, অক্টোবর ২৪, ২০২০
এনইউ/এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa