ঢাকা, শুক্রবার, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

জাতীয়

চলছে প্রতিমা বন্দনার জোর প্রস্তুতি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৫৪৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০
চলছে প্রতিমা বন্দনার জোর প্রস্তুতি চলছে প্রতিমা বন্দনার জোর প্রস্তুতি

ঠাকুরগাঁও: মহামারি করোনা ভাইরাস উপেক্ষা করে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা পালনের প্রস্তুতি চলছে।  

তবে, করোনা ভাইরাসের কারণে এবার দুর্গাপূজা জাঁকজমকপূর্ণভাবে পালন হবে না বলে জানান সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

আগামী ২২ অক্টোবর থেকে দুর্গাপূজা শুরু হবে। করোনা ভাইরাসের কারণে এবার দুর্গোৎসবের চির পরিচিত আমেজ থাকছে না। এবার উৎসবের সবক্ষেত্রেই থাকছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কড়া নির্দেশ।

তবে দুর্গাপূজার প্রস্তুতিতে কোনো কমতি নেই। ঠাকুরগাঁওয়ে বেশ জোর দিয়েই চলছে প্রতিমা বন্দনার প্রস্তুতি।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার অবিনাস চন্দ্র জানান, বংশ পরম্পরায় প্রতিমা তৈরির কাজ আমরা প্রতি বছর করে থাকি। তবে এবার প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে তেমন কোনো উৎসাহ পাওয়া যাচ্ছে না। এবার দুর্গাপূজায় ১৩ টা প্রতিমা তৈরির কাজ হাতে নিয়েছি। ১৩ টা প্রতিমা তৈরি করতে দিনরাত পরিশ্রম করছি । তবে দুর্গাপূজা শুরু হওয়ার আগেই সব প্রতিমার কাজ শেষ করতে পারবো বলে আমরা আশা করছি।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের রতন সরকার জানান, আমাদের বছরের সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপূজা প্রতি বছরই অনেক আনন্দ করেই দুর্গাপূজা পালন করি। তবে এবার হয়তো একটু ভিন্ন। কারণ মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে পূজামণ্ডপের যেতে হবে।  

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সুব্রত জানান, প্রতি বছর এই ফারাবাড়ী দুর্গাপূজা মণ্ডপ ঐতিহাসিকভাবে সাজানো হয়। গেট প্যান্ডেলসহ এবং পূজামণ্ডপের ভিতরে লাইটিং অনেক জাঁকজমকপূর্ণভাবে লাগানো হয়। তবে এবার মহামারি করোনা ভাইরাস তা হচ্ছে না। সরকারি নির্দেশনা এবার শুধু প্রতিমা তৈরি করা হবে। তবে কোনো বড়োসড়ো প্যান্ডেল বা গেট লাইটিং করা যাবে না।

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তপন কুমার ঘোষ বলেন, ঠাকুরগাঁও জেলায় দুর্গাপূজার ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে।

তিনি আরও বলেন, পূজা আয়োজনে এক মাসেরও কম সময় রয়েছে। মণ্ডপগুলোতে বেশ জোরেশোরে প্রস্তুতি চলছে। পূজা শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ার লক্ষ্যে আমরা জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সব মণ্ডপের দায়িত্বশীলদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। আশা করা যাচ্ছে, এবার কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পূজা উদযাপিত হবে।

এবছর জেলার পাঁচটি উপজেলায় ৪৪৭টি মণ্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। শান্তিপূর্ণভাবে ধর্মীয় উৎসবে পূজা পালন করার জন্য প্রতিটি ধর্মের মানুষের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক কে এম কামরুজ্জামান সেলিম জানান, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে সরকারি নিয়ম-নীতি মেনে চলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবার পূজা পালন করতে হবে।

বাংলাদেশ সময়: ০৫৪৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০
ওএফবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa