ঢাকা, বুধবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৭, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪ সফর ১৪৪২

জাতীয়

ধানমন্ডি-বনানীতে আবাসিক হোটেল বন্ধ, চলছে তল্লাশি-ব্লক রেইড

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫৭ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০২০
ধানমন্ডি-বনানীতে আবাসিক হোটেল বন্ধ, চলছে তল্লাশি-ব্লক রেইড

ঢাকা: আগামী ১৫ আগস্ট (শনিবার) জাতীয় শোকদিবস পালন উপলক্ষে ধানমন্ডি ৩২ নম্বর ও বনানী কবরস্থানের আশ-পাশের এলাকার সব আবাসিক হোটেল-গেস্ট হাউজ দুইদিন বন্ধ থাকবে। এছাড়া সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিতে বিভিন্ন এলাকায় পুলিশের তল্লাশি, ব্লক রেইড, চেকপোস্টের কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানায়।

ডিএমপি জানায়, নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে এবং বনানী কবরস্থানে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে আসা প্রত্যেক ব্যক্তিকে মেটাল ডিটেকটর দিয়ে তল্লাশি করা হবে। সবাইকে আর্চওয়ের ভেতর দিয়ে প্রবেশ করতে হবে। নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি, ব্লক রেইড, চেকপোস্টের কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

ধানমন্ডি ৩২ ও বনানী কবরস্থান ও আশপাশের এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। ভেন্যু কেন্দ্রিক অস্থায়ী পুলিশ কন্ট্রোলরুম থেকে সার্বক্ষণিক সিসিটিভি মনিটরিং করা হবে।

ধানমন্ডি ৩২ ও বনানী কবরস্থান কেন্দ্রিক নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পোশাকে ও সাদা পোশাকে পর্যাপ্ত পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে। একইসঙ্গে অনুষ্ঠানস্থল ডগ স্কোয়াড ও বোম ডিসপোজাল ইউনিট দিয়ে সুইপিং করা হবে। ধানমন্ডি লেকে মোতায়েন থাকবে নৌ পুলিশের টহল। ১৫ আগস্টের অনুষ্ঠানকে ঘিরে ধানমন্ডি ৩২ কেন্দ্রিক নিরাপত্তায় মোতায়েন থাকবে ফায়ার টেন্ডার ও অ্যাম্বুলেন্স। প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য দুই ভেন্যুতেই থাকবে মেডিক্যাল টিম।

নিরাপত্তার স্বার্থে আগামী ১৪ আগস্ট থেকে ১৫ আগস্ট ২০২০ পর্যন্ত ধানমন্ডি ৩২ ও বনানী কবরস্থান সংলগ্ন এলাকায় অবস্থিত হোটেল, গেস্ট হাউজ বন্ধ থাকবে এবং মেসগুলোতে পুলিশের নজরদারি বাড়ানো হবে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে উস্কানিমূলক পোস্ট, গুজব ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য প্রচার করে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করার বিষয়ে অনলাইন/সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যেকোনো অপপ্রচার কঠোরভাবে নজরদারি করাসহ জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

পুস্পস্তবক অর্পণ করতে আসা জনসাধারণকে বিভিন্ন দিক-নির্দেশনা দিতে ধানমন্ডি ৩২ নম্বর কেন্দ্রিক মাইকিং ব্যবস্থা থাকবে। আগত জনসাধারণের জন্য থাকবে বিশুদ্ধ খাবার পানির ব্যবস্থা।

অনুষ্ঠানস্থলে গমনাগমনের ক্ষেত্রে ভিভিআইপি, ভিআইপি, সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তারা মানিক মিয়া এভিনিউ (ধানমন্ডি ২৭ নম্বর ক্রসিং), মিরপুর রোড (মেট্রো শপিং মল মোড়), ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের পশ্চিম প্রান্ত দিয়ে প্রবেশ এবং একই পথে প্রস্থান করবেন। বিভিন্ন দল, প্রতিষ্ঠান এবং সর্বসাধারণের একমুখী গমনাগমনের নিমিত্তে রাসেল স্কোয়ার থেকে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের পূর্ব প্রান্ত দিয়ে প্রবেশ করে পশ্চিম প্রান্ত দিয়ে বের হবে। ১৫ আগস্ট জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষে ধানমন্ডি ৩২ নম্বর ও বনানী কবরস্থান এলাকায় আগতদের গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য নির্ধারিত স্থান রাখা হয়েছে। মিরপুর রোড ও ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের চারপাশে মোটরসাইকেল পার্কিং নিষেধ।

জাতীয় শোকদিবসের কর্মসূচিতে করোনাকালীন সংক্রমণ রুখতে সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সম্মানিত নগরবাসীর সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করছে ডিএমপি।

এদিকে, বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) ধানমিন্ড ৩২ নম্বর এলাকায় গৃহীত নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শন করেছেন ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৫ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০২০
পিএম/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa