ঢাকা, শনিবার, ৩ আশ্বিন ১৪২৭, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০ সফর ১৪৪২

জাতীয়

মালদ্বীপ ও চেক প্রজাতন্ত্রের সঙ্গে দ্বৈত করারোপণ পরিহার চুক্তি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭২৩ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০২০
মালদ্বীপ ও চেক প্রজাতন্ত্রের সঙ্গে দ্বৈত করারোপণ পরিহার চুক্তি ফাইল ফটো

ঢাকা: বাংলাদেশের সঙ্গে মালদ্বীপ এবং চেক প্রজাতন্ত্রের মধ্যে দ্বৈত করারোপণ পরিহার ও রাজস্ব ফাঁকি রোধ সংক্রান্ত চুক্তির খসড়ার অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।
 
সোমবার (১০ আগস্ট) মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে একথা জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।


 
এরআগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভার্চ্যুয়াল মন্ত্রিসভায় অংশ নেন। সচিবালয় প্রান্ত থেকে ছয়জন মন্ত্রী সংযুক্ত ছিলেন।  
 
মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ৩৫/৩৬টি দেশের সঙ্গে আমাদের এরকম দ্বৈত করারোপ রহিতকরণ সংক্রান্ত চুক্তি রয়েছে।
 
‘এটার জন্য আমাদের পারস্পারিক বিনিয়োগ ও অর্থনৈতিক সহাযোগিতার পথ প্রশস্ত হবে। কারণ, ডুয়েল ট্যাক্সেশন হলে ব্যবসায়ীরা ওপেনআপ করতে চায় না। ’
 
তিনি জানান, ২০১৯ সালের ২২ থেকে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত ঢাকায় মালদ্বীপের মধ্যে আলোচনা হয়। তখন তারা দ্বৈত করারোপ পরিহার করার লক্ষ্যে চুক্তি করা যায় কিনা, তার সিদ্ধান্ত নেয়। এ নিয়ে দু’দেশের মধ্যে বেশ কয়েকটি মিটিং হয়েছে।  
 
‘অন্য দেশের সঙ্গে যেভাবে দ্বৈত করারোপ পরিহারের বিষয়ে যে চুক্তি রয়েছে সেরকমই চুক্তি। ’
 
মন্ত্রিসভায় বাংলাদেশ ও চেক প্রজাতন্ত্রের মধ্যে দ্বৈত করারোপণ পরিহার ও রাজস্ব ফাঁকি রোধ সংক্রান্ত চুক্তির খসড়া অনুসমর্থনের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
 
মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ২০১৯ সালের ১১ ডিসেম্বর দু’দেশের মধ্যে চুক্তি সই হয়েছিল জানিয়ে তিনি বলেন, এখানে নতুন একটি রেটিফিকেশন হয়েছে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৭১৯ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০২০
এমআইএইচ/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa