ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ সফর ১৪৪২

জাতীয়

খিলগাঁওয়ে ৫০০০ দুস্থের মাঝে খাবার বিতরণ

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩৫ ঘণ্টা, আগস্ট ৫, ২০২০
খিলগাঁওয়ে ৫০০০ দুস্থের মাঝে খাবার বিতরণ .

ঢাকা: করোনা ও করোনাজনিত বিভিন্ন উপসর্গে নিয়ে মৃত ব্যক্তিদের দাফনে এগিয়ে এসে দেশ-বিদেশে আলোচিত হন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। এছাড়া দুস্থদের পাশে দাঁড়িয়েও প্রশংসিত হন তিনি।

নারায়ণগঞ্জে সেই খোরশেদ এবার ছুটি এলেন রাজধানীর খিলগাঁওয়ে। সেখানে অনাবৃ ফাউন্ডেশন ও ক্লাস রুমের উদ্যোগে ৫ হাজার দুস্থ ও মধ্যবিত্ত পরিবারে মাঝে খাবার তুলে দিতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত হন তিনি।  

‘একের পাশে হাজার জন’ শ্লোগান নিয়ে খিলগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দুস্থ ও হতদরিদ্রদের মাঝে কোরবানির মাংস এবং রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন অনাবৃ ফাউন্ডেশনের সভাপতি মনির হোসেন সরকার। এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এসব তথ্য জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে কাউন্সিলর খোরশেদ বলেন, করোনার মধ্যে মানুষের কষ্ট দেখে আমি বাসায় বসে থাকতে পারিনি। ছোট একটি টিম নিয়ে আমরা মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছি। ছাড়কৃত মূল্যে অসহায় ও নিম্ন আয়ের মানুষরা যাতে খাদ্যসামগ্রী কিনতে পারেন, সে চেষ্টা করেছি। অনাবৃ ফাউন্ডেশন ও ক্লাস রুম খুবই ভালো উদ্যোগ হাতে নিয়েছে। তাদের জন্য সবসময় আমার দোয়া থাকবে।

অনাবৃ ফাউন্ডেশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসাইন ইকু বলেন, আমরা এতিম শিশু ও অবহেলিত বৃদ্ধাদের নিয়েও একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠান গড়ার লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছি। দেশের যে কোন দুর্যোগে আমরা যাতে সবসময় মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারি, সবার কাছে সে দোয়া চাই।  

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ২৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সাখাওয়াত হোসেন সওকত, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ওয়াহিদুল হাসান মিল্টন, ৭৫ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর  আকবর হোসেন,  খিলগাঁও রবি সংঘের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাদুসহ অনেকে।  

অনুষ্ঠানের মাধ্যমে খাবার বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়। পরে ঢাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডসহ ঢাকার আশেপাশের বন্যাদুর্গত এলাকায় অসহায়দের কাছে কোরবানির গোশত ও রান্না করা খাবার পৌঁছে দেওয়া হয়।  

‘অসহায়ের পাশে সবসময়’ শ্লোগান নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয় অনাবৃ ফাউন্ডেশন। করোনাকালীন সময়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা কার্যক্রম থেকে শুরু করে একমুখী বাজার, বিভিন্ন মসজিদ-মার্কেটের প্রবেশ মুখে জীবাণুনাশক অটো স্প্রে মেশিন স্থাপন, করোনা রোগীদের জন্য অ্যাম্বুলেন্স-হাসপাতাল ব্যবস্থা, অক্সিজেন সরবরাহ, প্লাজমার ব্যবস্থা এবং ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্পসহ মৃত করোনা রোগীদের দাফন সংক্রান্ত সহায়তা করে আসছে সংগঠনটি।  

বাংলাদেশ সময়: ২০৩৫ ঘণ্টা, আগস্ট ০৫, ২০২০
জেআইএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa