ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ সফর ১৪৪২

জাতীয়

মেজর সিনহা হত্যা: ৭ কর্মদিবসে প্রতিবেদন দেওয়ার টার্গেটে কাজ শুরু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২৪৭ ঘণ্টা, আগস্ট ৫, ২০২০
মেজর সিনহা হত্যা: ৭ কর্মদিবসে প্রতিবেদন দেওয়ার টার্গেটে কাজ শুরু ...

কক্সবাজার: কক্সবাজারের টেকনাফের শামলাপুরে পুলিশের গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহা রাশেদ খান নিহতের ঘটনায় গঠিত কমিটি আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার টার্গেট নিয়ে কাজ শুরু করেছে।  

তদন্ত কমিটির প্রধান চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বাংলানিউজকে বিষয়টি জানান।

তিনি বলেন, নিরপেক্ষ এবং স্বচ্ছতার মধ্যে তদন্ত কাজ করা হবে। তদন্ত কার্যক্রম চলবে গোপনে, তদন্তের স্বার্থে এ বিষয়ে এখন কিছু বলা যাবে না। কীভাবে তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে, আমরা সে বিষয়ে কর্মপরিকল্পনা তৈরি করেছি।

এই তদন্ত কর্মকর্তা বাংলানিউজকে আরও বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য সাত কর্মদিবস সময় দেওয়া হয়েছে। আমরা এই সময়ের মধ্যে তদন্ত কাজ শেষ করার পরিকল্পনা নিয়েই কাজ শুরু করেছি। তদন্তের স্বার্থে যেখানে যেখানে যেতে হয় আমরা সেখানে যাব। স্বরাস্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে যে শর্ত বা নির্দেশনা কমিটিকে দেওয়া হয়েছে তার ভিত্তিতে তদন্ত কাজ পরিচালনা করা হবে।

গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।  

ওই ঘটনার পর প্রথমে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহজাহান আলীকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে স্বরাস্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ। পরে শনিবার (২ আগস্ট) তা পুনর্গঠন করে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে তদন্ত দলের প্রধান করা হয়। কমিটিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের একজন প্রতিনিধি, রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও কক্সবাজারের এরিয়া কমান্ডারের একজন প্রতিনিধি, পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শকের (ডিআইজি) একজন প্রতিনিধি ও কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের একজন প্রতিনিধি রাখা হয়েছে। এ কমিটিকে সরেজমিনে তদন্ত করে ঘটনার কারণ, উৎস অনুসন্ধান এবং ভবিষ্যতে যেন এ ধরনের ঘটনা না ঘটে তার করণীয় সম্পর্কে সুস্পষ্ট মতামত দিতে বলা হয়েছে।  

এদিকে তদন্ত কার্যক্রম শুরু করতে মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) সকালে তদন্ত কমিটির প্রধান চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান কক্সবাজারে পৌঁছেন। তিনি কক্সবাজার সার্কিট হাউস সম্মেলন কক্ষে বিকেলে তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যদের নিয়ে বৈঠক করেন।

এর আগে  গত শনিবার কক্সবাজারে আসেন পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক ও অতিরিক্ত ডিআইজি (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস) মো. জাকির হোসেন। সোমবার (৩ আগস্ট) বিকেলে তারা মেরিন ড্রাইভ দিয়ে টেকনাফ পরিদর্শন করেন। কিন্তু ঘটনার বিষয়ে পুলিশের কোনো কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে কিছু বলেননি।

বাংলাদেশ সময়: ০২৪৫ ঘণ্টা, আগস্ট ০৫, ২০২০
এসবি/এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa