ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৫ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

শিবচরে ফেরি থেকে নামিয়ে গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ, আটক ৪

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৭-০৯ ০৩:০২:২৭ এএম
শিবচরে ফেরি থেকে নামিয়ে গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ, আটক ৪ গণধর্ষণ। প্রতীকী ছবি

মাদারীপুর: মাদারীপুর জেলার শিবচরের কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি থেকে নামিয়ে চরে নিয়ে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।  

মঙ্গলবার (৭ জুলাই) রাতে কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটের পদ্মার চরে এ ঘটনা ঘটে।

 

বুধবার (৮ জুলাই) সন্ধ্যায় এ ঘটনায় জড়িত ৪ জনকে আটক করেছে শিবচর থানা পুলিশ। নির্যাতিতার স্বামী বাদী হয়ে শিবচর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, মঙ্গলবার রাতে শিবচরের কাঁঠালবাড়ী ঘাট থেকে শিমুলিয়ার উদ্দেশে ফেরিতে ওঠেন যশোরের এক নারী। তার স্বামী ঢাকার একটি প্রজেক্টে শ্রমিকের চাকরি করেন। কাঁঠালবাড়ী থেকে ফেরিটি ছেড়ে গেলে ফেরির পেছন থেকে স্পিডবোটে যাত্রী উঠানো হয়। দ্রুত পদ্মা পার করে দেওয়ার কথা বলে ওই নারীকে স্পিডবোটে তুলে নেয় মাসুদ মোল্যা, মাহবুব মৃধা ও নূর মোহাম্মদ নামে তিন যুবক। পরে কিছুদূর যাওয়ার পর স্পিডবোটের জ্বালানি ফুরিয়ে গেছে বলে ওই নারীকে একটি ট্রলারে উঠিয়ে পদ্মার চরে নিয়ে ধর্ষণ করে তারা। গৃহবধূর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তিন ধর্ষণকারী পালিয়ে যায়।

গত তিন দিন আগে ওই গৃহবধূ কাঁঠালবাড়ি এলাকার দানেশ তালুকদারের বাড়ি বেড়াতে আসেন। মঙ্গলবার রাতে স্বামীর বাসা কেরানীগঞ্জ যাওয়ার জন্য কাঁঠালবাড়ি থেকে শিমুলিয়ার উদ্দেশে ফেরিতে রওয়া দেন। ওই সময় তার স্বামী রাসেল মিয়া শিমুলিয়া ঘাটে তার জন্য অপেক্ষা করছিলেন।  

এদিকে বুধবার বিকেলে কাঁঠালবাড়ী এলাকায় ধর্ষণের শিকার ওই নারীর আত্মীয় স্বজন বিষয়টি আপস করার চেষ্টা করে। এমন খবর পেয়ে শিবচর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) বিষ্ণুপদ হীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে গৃহবধূসহ অভিযুক্তদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে। বর্তমানে তিনি শিবচর থানা পুলিশের হেফাজতে আছেন।

এসআই বিষ্ণুপদ হীরা জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে কাঁঠালবাড়িতে নির্যাতিতা  গৃহবধূসহ ধর্ষণকারী তিন যুবক মাসুদ মোল্লা (২৫) মাহবুল মৃর্ধা (৩০), নুর মোহাম্মদ হাওলাদারকে (২৪) এবং ধর্ষণে সহায়তাকারী ওমর ফারুককে (২৬) গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসা হয়।  

গ্রেফতারকৃত মাসুদ কাঁঠালবাড়ী এলাকার ফকিরকান্দি গ্রামের তনু মোল্লার ছেলে। মাহাবুল মৃধা একই এলাকার রশিদ মৃধার ছেলে এবং আটক নুর মোহাম্মদ হাওলাদার একই এলাকার সামাদ হাওলাদারের ছেলে।

শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বলেন, এ ঘটনায় জড়িতদের আটক করা হয়েছে। এবং ওই নারীর স্বামী বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে।

বাংলাদেশ সময়: ০৩০০ ঘণ্টা, জুলাই ০৯, ২০২০
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa