ঢাকা, বুধবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৫ আগস্ট ২০২০, ১৪ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

আরো সপ্তাহখানেক পর গাবতলী পশুর হাটের প্রস্তুতি

হোসাইন মোহাম্মদ সাগর, ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৭-০৮ ০৪:১৩:১১ পিএম
আরো সপ্তাহখানেক পর গাবতলী পশুর হাটের প্রস্তুতি এখনো কোরবানির পশু আসার প্রস্তুতি শুরু হয়নি গাবতলী হাটে/ছবি: জিএম মুজিবুর

ঢাকা: কোরবানির ঈদ উপলক্ষে দেশের সবচেয়ে বড় পশুর হাট বসে রাজধানীর গাবতলীতে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেই একটু ভালো দামের আশায় খামারিরা তাদের পশু নিয়ে আসেন এই হাটে।

তবে ঈদের দিন-তারিখের আনুমানিক তারিখ জানা গেলেও এবার এখনো শুরু হয়নি গাবতলী পশুর হাটের প্রস্তুতি।

বুধবার (৮ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর গাবতলী পশুর হাট ঘুরে দেখা যায়, ঈদ উপলক্ষে হাটে কিছু পশু এলেও তা স্বাভাবিক সময়ের মতো বলেই দাবি হাটের ব্যবসায়ীদের।  

ঈদে কোরবানির পশুর বাজার শুরু হতে আরো সময় লাগবে বলে মন্তব্য তাদের। একই সঙ্গে আরো প্রায় এক সপ্তাহ পরে ঈদের হাটের প্রস্তুতি শুরু হবে বলে জানিয়েছে গাবতলী পশুর হাট কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে হাট পরিচালনা কমিটির সদস্য মো. সানোয়ার হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, ঈদ উপলক্ষে হাটের প্রস্তুতি এখনো শুরু হয়নি। এটা প্রতিবার ঈদের এক সপ্তাহ বা ১৫ দিন আগে থেকে শুরু হয়। তবে এবার করোনার জন্য সময় আরো বেশি লাগবে। এছাড়া এবার এখনো হাটের ইজারা সম্পন্ন হয়নি। ইজারা সম্পন্ন হওয়ার পরেই মূল প্রস্তুতি শুরু হবে। সব মিলিয়ে এখনো প্রায় এক সপ্তাহ সময় লাগবে প্রস্তুতি শুরু করতে।

করোনা মহামারির মধ্যে হাটে অতিরিক্ত লোক সমাগম বিষয়ে তিনি বলেন, এবারের হাটের প্রস্তুতি করোনার জন্য একটু ধীরগতিতে এগোচ্ছে। এটা এবার কীভাবে চলে এখনো বলা যাচ্ছে না। তবে আমরা নির্দিষ্ট শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং অন্যান্য নির্দেশনা মেনেই কাজ করার চেষ্টা করবো। এ বিষয়ে উপর থেকেও বিশেষ নির্দেশ রয়েছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, হাটের বর্ধিতাংশে এখনো ইটভাটার ইট জমা হয়ে আছে। অথচ এই জায়গাগুলোতে প্রতিবার ঠাঁয় পায় বাজারের সবচেয়ে বড় পশুগুলো। এছাড়া প্যান্ডেল করা, প্যান্ডেলে বাঁশ লাগানো, লাইট লাগানো, বা শামিয়ানার কাজও শুরু হয়নি এখনো।

নূর বারী সিদ্দিক নামে একজন ছাগলের ব্যবসায়ী জানান, এবার করোনার কারণে সবকিছুই ঢিলেঢালা। বাজারে তেমন ছাগল-গরু আসছে না। কিছু পশু এলেও ক্রেতা কম। ঈদ উপলক্ষে এবার অনেক ব্যবসায়ীই করোনার জন্য হয়তো বাজারে পশু আনবেন না। সব মিলিয়ে এবার ব্যবসা কেমন যাবে তা বলা মুশকিল। তবে সবকিছুই নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির উপর।

অন্য ব্যবসায়ীদের মতামতও প্রায় এক। এ বিষয়ে গরু ব্যবসায়ী সাইদুল ইসলাম বলেন, কোরবানির ঈদ উপলক্ষে হাটের মূল বেচাকেনা হয় শেষের তিন দিন। পশুও আসে ওই সময়ই। তাই এখন তেমন তাড়াহুড়ো নেই। বর্তমানে হাটের নিয়মিত বিক্রেতা যারা আছেন, তারা কিছু কোরবানির পশু নিয়ে এসেছেন। তবে কোরবানি উপলক্ষে সেগুলো থেকে বিক্রি হয়নি একটিও।

এদিকে দেশের সর্ববৃহৎ এই কোরবানির পশু বিক্রির হাটের নিরাপত্তা রক্ষার পাশাপাশি করোনার সুরক্ষার ব্যাপারেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি হাট ইজারাদার ও পরিচালনা কমিটির পক্ষ থেকে ভলান্টিয়ার দল থাকবে বলে জানিয়েছেন গাবতলী পশুর হাট কর্তৃপক্ষ।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৫ ঘণ্টা, জুলাই ০৮, ২০২০
এইচএমএস/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa