ঢাকা, রবিবার, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৯ আগস্ট ২০২০, ১৮ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

‘সবার মুখে মাস্ক, বাদাম আগের মতো আর কেউ খায় না’

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০০৬ ঘণ্টা, জুলাই ৭, ২০২০
‘সবার মুখে মাস্ক, বাদাম আগের মতো আর কেউ খায় না’

ঢাকা: ‘সবার মুখে মাস্ক তাই বাদাম আগের মতো আর কেউ খায় না। বিক্রি হয় না বললেই চলে। মানুষের পেটে আগে ভাত পরে বাদাম। করোনা ভাইরাসের এ সময় ভাতের পেছনে দৌড়াইতেছে মানুষ, বাদামের দিকে কেউ ফিরেও তাকায় না। তাই আমরা বাদাম বিক্রেতারা অনেক কষ্টে আছি। কারণ আমরা বাদাম বিক্রি কইরা ভাত খাই। আমাদের মতো অনেক হকার কষ্টে আছে তাদেরও বিক্রি নাই।’

বাদাম বিক্রেতা মুরাদ মিয়া ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের গেটের সামনে ১০ বছর ধরে বাদাম ও ছোলা বিক্রি করে আসছেন। করোনা ভাইরাসের কারণে বর্তমান পরিস্থিতিতে বাদাম কেমন বিক্রি হচ্ছে এ প্রশ্ন করার পর উত্তরে এসব কথা বলেন তিনি।



মুরাদ বলেন, ‘সবার মুখে এখন মাস্ক। কেউ মাস্ক খুইলা বাদাম খাইতে চায় না। করোনা গরিব মানুষদের খাইয়া পালাইলো। এখন আর আগের মতো বিক্রি হয় না। এখন দিনে দু-তিনশ’ টাকার বাদাম বিক্রি করতেই অনেক কষ্ট হয়। আর করানোর আগে ১৭ থেকে ১৮শ’ টাকা বিক্রি করতাম। ’

তিনি বলেন, ‘ঢাকা শহরে মানুষ এখন কম। সবাই ভাতের পেছনে ছুটছে। বাদাম আর কখন খাইবো! কিন্তু আমিতো বাদাম বিক্রি কইরা ভাত খাই, আমার ব্যবসাই হচ্ছে এটা। ’

বাদাম বিক্রেতা মুরাদ মিয়া।  ছবি: বাংলানিউজ

মুরাদ নিরাশার কথা শোনালেও আবার নিজেই আশার কথা শোনান। তিনি বলেন, ‘একদিন করোনা চলে যাবে। আবার আগের অবস্থায় ফিরে যাবো আমরা ইনশাআল্লাহ। আশা করি ভালো দিন আসবে। তখন আমি প্রত্যেক দিন দুই হাজার টাকার বাদাম বেচবো। ’

লালবাগ কামালবাগে একটি মেসে থাকেন মুরাদ। কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলার জাফরনগর এলাকার বাসিন্দা তিনি। তার স্ত্রী ও দুই সন্তান গ্রামেই থাকেন।

বাংলাদেশ সময়: ১০০৬ ঘণ্টা, জুলাই ০৭, ২০২০
এজেডএস/এফএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa