bangla news

বাগেরহাটে ‘ইসলামিক আর্মি ফোর্স’-এর সদস্য আটক

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৬-১৭ ৫:৫৬:৩১ পিএম
বাগেরহাটে ইসলামিক আর্মি ফোর্সের সদস্য আটক

বাগেরহাটে ইসলামিক আর্মি ফোর্সের সদস্য আটক

বাগেরহাট: বাগেরহাটে মোহাম্মাদ আলী খান (২৩) নামে ‘ইসলামিক আর্মি ফোর্সের’ এক সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরকার ও আইনবিরোধী বিভ্রান্তিমূলক ভিডিও বক্তব্য পোস্ট করায় তাকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের পূর্বক আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। 

বুধবার (১৭ জুন) দুপুরে বাগেরহাট পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের কনফারেন্স রুমে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান পুলিশ সুপার পঙ্কজচন্দ্র রায়।

এর আগে, মঙ্গলবার (১৬ জুন) বিকেলে অভিযান চালিয়ে মোরেলগঞ্জ পৌর শহরের উত্তর সরালিয়া গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে মোহাম্মাদ আলীকে আটক করে মোরেলগঞ্জ থানা পুলিশ। আটক মোহাম্মাদ আলী খান উত্তর সরালিয়া গ্রামের রাজমিস্ত্রি মনিরুজ্জামানের ছেলে। তিনি স্থানীয় মনোয়ারা বেগম ইসলামিয়া মহিলা মাদ্রাসা ও এসএ ক্যাডেট একাডেমিতে নিরাপত্তা প্রহরী হিসেবে চাকরি করতেন।

পুলিশ সুপার পঙ্কজচন্দ্র রায় জানান, জিজ্ঞাসাবাদে আমরা জানতে পেরেছি লক্ষ্মীপুর জেলার বল গেটে চাকরিরত অবস্থায় ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসে একটি ফরম পূরণের পর ইসলামিক আর্মি ফোর্সের (আইএএফ) সদস্য হন মোহাম্মাদ আলী খান। পরবর্তীতে তিনি বিভিন্ন সময় তাদের সঙ্গে মেইল ও ফেসবুক মেসেঞ্জারের মাধ্যমে যোগাযোগ করতেন। ১১ জুন দুপুরে তার বাড়ির পাশের দারুল ইসলাম ট্রাস্ট জামে মসজিদে বসে মোবাইলে তার বক্তব্য ধারণ করেন এবং তা ফেসবুক ও ইউটিউবে আপলোড করেন। পরে আব্দুল্লাহসহ অন্য সহযোগীদের পরামর্শ ও সহায়তায় তার নিজ মোবাইল দিয়ে muhammad.khan.28814@gmail.com এই মেইল আইডি থেকে সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেডের মেইলে মেইল পাঠিয়ে বাংলাদেশ সরকারের প্রচলিত আইনের বিরুদ্ধাচারণ ও বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যদের নামে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও জনসাধারণের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি  করেন। 

জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানা যায়, তিনি জিহাদের নামে ইসলামী আইন প্রতিষ্ঠার জন্য বিভিন্ন সংগঠনের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহের চেষ্টা করেন। তিনি বাংলাদেশ সরকার এবং বিভিন্ন বাহিনীকে সন্ত্রাসী হামলার হুমকি দেওয়াসহ বাংলাদেশের শান্তি, শৃঙ্খলা, সংহতি, জননিরাপত্তা বিপন্ন করার চেষ্টা করেন।
 
তার এসব কর্মকাণ্ডের সঙ্গে আর কেউ জড়িত রয়েছে কি না আমরা সেটা খতিয়ে দেখার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানান পুলিশ সুপার পঙ্কজচন্দ্র রায়।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫৪ ঘণ্টা, জুন ১৭, ২০২০
এনটি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-06-17 17:56:31