ঢাকা, বুধবার, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

জাতীয়

ডিএসসিসিতে দুর্নীতি প্রতিরোধে কমিটি গঠন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০০ ঘণ্টা, জুন ২, ২০২০
ডিএসসিসিতে দুর্নীতি প্রতিরোধে কমিটি গঠন ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

ঢাকা: ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) কর্মকর্তাদের দুর্নীতি বা দায়িত্বে গাফিলতির বিষয়ে সুপারিশ প্রদানে কমিটি গঠন করা হয়েছে। অর্থ ও সংস্থাপন বিষয়ক স্থায়ী কমিটি নিজেদের নির্দিষ্ট দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি কর্মকর্তাদের দুর্নীতি এবং গাফিলতির বিষয়ে সিটি করপোরেশনকে সুপারিশ প্রদান করবে।

মঙ্গলবার (২ জুন) ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের সভাপতিত্বে দ্বিতীয় পরিষদের প্রথম করপোরেশন সভায় এ কমিটি গঠন করা হয়। নয় সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটির সভাপতি ডিএসসিসির ৪২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ সেলিম।

সভায় মেয়র তাপস নিজেকে শহীদ ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান উল্লেখ করে বলেন, করপোরেশনের রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতি রয়েছে। এ দুর্নীতিকে আমি প্রশ্রয় দেবো না এবং দুর্নীতির লেশমাত্র এ সংস্থায় রাখবো না।  

নতুন কমিটিকে কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি বিষয়ক বা দায়িত্ব পালনে কোনো গাফিলতির অভিযোগ পেলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করার অনুরোধ করেন তাপস। কমিটির সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিক কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে কর্মকর্তাদের প্রতি তিনি পুনরায় হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

মেয়র তাপস ঢাকাবাসীর সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধিকল্পে যৌক্তিকভাবে নতুন নতুন আয়ের খাত সৃষ্টি করার ঘোষণা দেন। তবে নাগরিকদের ওপর কোনো কর বৃদ্ধি হবে না বলেও উল্লেখ করেন।  

ডিএসসিসির দ্বিতীয় পরিষদের প্রথম করপোরেশন সভায় কাউন্সিলররা। সিটি করপোরেশনের সব কাজে কাউন্সিলরদের সম্পৃক্ত করা হবে জানিয়ে তাপস বলেন, আজ থেকে আমাদের নবযাত্রা শুরু হলো। শুরু হলো নব সূচনা। ঢাকাবাসীর কল্যাণে দেওয়া ওয়াদা পূরণের লক্ষ্যে আমরা কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করছি। ইনশাল্লাহ আমাদের কার্যক্রমের মাধ্যমেই ঢাকাবাসী এর প্রতিফলন দেখতে পাবেন। এখন থেকে করপোরেশনের সব কাজে কাউন্সিলরদের সম্পৃক্ত করা হবে এবং ঢাকাবাসীর কল্যাণে যা কিছু করা হবে, যেসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে তা তাদের নিয়েই। তার বাস্তবায়নও করা হবে। আপনারাই আমার পথচলার প্রধান শক্তি।

সবাইকে আবারও শতভাগ আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে মেয়র তাপস বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা করে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার অভিযাত্রায় আমরা উন্নত ঢাকা গড়ার ভিত্তি রচনা করে যাবো। এজন্য বছরে ৩৬৫ দিন ১২ মাস ২৪ ঘণ্টা আমাদের কাজ করে যেতে হবে। ঢাকাবাসীর কাছে আমাদের যে দায়বদ্ধতা তা সবাই নিষ্ঠা নিয়ে আন্তরিকতার সঙ্গে করলে সব সংকট মোকাবিলা করেই আমরা করপোরেশনকে ঢাকাবাসীর আস্থা ও গর্বের সংগঠনে পরিণত করতে সক্ষম হবো। আজ থেকে করপোরেশনের দরজা আপনাদের জন্য খোলা। আপনারা সরসরি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন।

পরে মেয়র মশক নিয়ন্ত্রণ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, যানজট, জলাবদ্ধতা নিরসন, রাস্তাঘাট উন্নয়ন ও অবৈধ দখলমুক্তকরণ ইত্যাদি কাজে কাউন্সিলরদের সক্রিয় সহায়তা কামনা করেন।

বোর্ড সভায় মেয়র উন্নয়নকাজে কাউন্সিলরদের সম্পৃক্ত করা ও তাদের সরাসরি সম্পৃক্ততার ব্যাপারে বেশ কিছু বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। এ সময় তিনি বলেন, এখন থেকে প্রতি মাসের প্রথম সপ্তাহে বোর্ড মিটিং অনুষ্ঠিত হবে ও কাউন্সিলররা সপ্তাহে একদিন সমস্যা নিরসনে তার সঙ্গে আলাপ করতে পারবেন। এজন্য সপ্তাহের একটি দিন ধার্য করে দেবেন বলেও কাউন্সিলরদের আশ্বস্ত করেন।

নব নির্বাচিত কাউন্সিলররা মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান এবং তাদের প্রত্যাশা মাফিক বিভিন্ন সমস্যা নিরসনে মেয়র কর্তৃক আশ্বস্ত হওয়ায় কাউন্সিলররা মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

বাংলাদেশ সময়: ১৭০০ ঘণ্টা, জুন ০২, ২০২০
এসএইচএস/আরআইএস/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa