ঢাকা, রবিবার, ২৮ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ জুলাই ২০২০, ২০ জিলকদ ১৪৪১

জাতীয়

বাজারে মৌসুমি ফল, দাম নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-২৮-০৫ ০২:৩৮:১০ পিএম
বাজারে মৌসুমি ফল, দাম নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ছবি: জি এম মুজিবুর

ঢাকা: রাজধানীর বাজারে অনেক আগেই এসেছে তরমুজ, বাঙ্গি। সদ্য বিদায়ী রমজান জুড়েই এসব ফলের আধিপত্য ছিল। মৌসুমি ফল হিসেবে এবার রাজধানীতে আসতে শুরু করেছে লিচু, কাঁঠাল। বিভিন্ন স্থানে বিক্রি হতে দেখা গেছে অপরিপক্ক আম। দামে চড়া হলেও লিচু-কাঁঠাল বেশ স্বাচ্ছন্দ্যে কিনতে দেখা গেছে ক্রেতাদের।

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এসব চিত্র উঠে এসেছে।

রাজধানীর মিরপুর, রামপুরা, মালিবাগ, খিলগাঁও এলাকায় প্রতি ১০০ পিস লিচু (আকার ও লিচুভেদে) বিক্রি হচ্ছে ৩২০ থেকে ৩৫০ টাকায়।

এসব এলাকায় প্রতি পিস কাঁঠাল (আকারভেদে) বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ৩০০ টাকায়। তরমুজ ১২০ থেকে ২৫০ টাকা, কালিয়া/খরমুজ ৩০ থেকে ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। এদিকে বিভিন্ন এলাকার ভ্যানযোগে অপরিপক্ক আম বিক্রি করতে দেখা গেছে। দামে সস্তা হওয়ায় নিম্ন আয়ের মানুষের পাশাপাশি অন্যরাও কিনছেন এসব আম।

এদিকে মৌসুমি ফল হিসেবে লিচু ও কাঁঠাল বাজারে এলেও দাম নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে ক্রেতা-বিক্রেতাদের মাঝে। ক্রেতারা বলছেন, এ বছর ফলের ভালো ফলন হওয়ায় দাম আরও কম হওয়া উচিত। আর বিক্রেতারা বলছেন, লকডাউনের কারণে পণ্য পরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি পাওয়ায় দাম বেড়েছে ফলের। আর গাজীপুরের কাঁঠালের চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম হওয়ায় দাম বেড়েছে।

সাইফুল ইসলাম নামে খিলগাঁও এলাকায় বসবাসরত এক ক্রেতা বাংলানিউজকে বলেন, প্রতি বছর গাজীপুরের কাঁঠালের দাম তুলনামূলক কম থাকে। এবার দাম অনেক বেশি। স্বাদে ভালো আর দামে সস্তা হওয়ায় এ কাঁঠালের স্বাদ নেয়া হয়, এবার আয় কমেছে আবার দাম শুনে ভয় কাজ করছে। লিচুর দামও কিছুটা বাড়তি রয়েছে। মানুষের আয় কমার সঙ্গে এগুলোর দামও কমা উচিত।

জামিরুল নামে মালিবাগ এলাকার এক মৌসুমী ফল বিক্রেতা বাংলানিউজকে বলেন, গাজীপুরের কাঁঠালের চাহিদার তুলনায় পণ্য কম আসছে, তাই দাম বেশি। তবে লিচুর দাম আরও কমে আসবে বলে জানান তিনি। তার মতে, লিচু বাজারে আরও আসবে তখন দাম কিছুটা কমে আসবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৩ ঘণ্টা, মে ২৮, ২০২০
ইএআর/এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa