ঢাকা, শনিবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

জনসমাগম বাড়ায় করোনা রোগীও বাড়ছে রাজশাহী বিভাগে

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৫ ঘণ্টা, মে ১৪, ২০২০
জনসমাগম বাড়ায় করোনা রোগীও বাড়ছে রাজশাহী বিভাগে

রাজশাহী: জনসমাগম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাও বেড়ে চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আগের তালিকায় নতুন করে যোগ হয়েছেন আরও আটজন রোগী। এ নিয়ে বিভাগে এখন করোনা পজিটিভ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৬৯ জনে।

রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্রনাথ আচার্য এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, এ বিভাগে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত ১২ এপ্রিল রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায়।

এরপর বুধবার (১৩ মে) পর্যন্ত বিভাগের আট জেলায় মোট ২৬৯ জন শনাক্ত হয়েছেন। এরমধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৪০ জন। আর করোনায় আক্রান্তের পর মৃত্যু হয়েছে দু’জনের। করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়ছেন ২৩৯ জন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক বলেন, বিভাগে এখন ৯৩ জন হাসপাতালে আছেন। বাকিরা আছেন বাড়িতে। অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হলেও উপসর্গ নেই। তারা ভালো আছেন। আর যারা কিছুটা অসুস্থ তাদের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। সার্বক্ষণিক তাদের বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। আর রাজশাহী জেলায় ১৭ জন করোনা পজিটিভ হলেও মহানগর এলাকা এখনও করোনা মুক্ত।

রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দেওয়া তথ্য মতে, রাজশাহী জেলায় এখন পর্যন্ত মোট ১৭ জন কোভিড-১৯ পজিটিভ রোগী রয়েছেন। এরমধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়েছেন ছয়জন। চাঁপাইনবাবগঞ্জে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ জন। এ জেলায় এখনও কেউ সুস্থ হননি। মারাও যাননি কেউ। পাশের নওগাঁ জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭০ জন। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১০ জন। নাটোরে আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা ১৩ জন। এ জেলায় এখনও কেউ সুস্থ হতে পারেননি। মারা গেছেন একজন। জয়পুরহাট জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৪ জনে। এটিই বিভাগের মধ্যে সর্বোচ্চ আক্রান্ত। তবে এ জেলায় সুস্থ হয়েছেন ১৫ জন। কেউ মারা যাননি। হাসপাতালে আছেন ৭০ জন। বগুড়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫৭ জন। এরমধ্যে হাসপাতালে আছেন ১৯ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮ জন। সিরাজগঞ্জে আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে কম ৬ জন। সবাই হোম আইসোলেশনে আছেন। এখানে সুস্থও হননি কেউ। মারাও যাননি। পাবনায় আছেন ১৬ জন। এরমধ্যে একজন সুস্থ হয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৩ ঘণ্টা, মে ১৪, ২০২০
এসএস/আরবি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।