ঢাকা, সোমবার, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ১৪ জুন ২০২১, ০৩ জিলকদ ১৪৪২

জাতীয়

ত্রাণের জন্য নির্যাতিত সেই বৃদ্ধার পাশে জেলা প্রশাসক

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০০২ ঘণ্টা, এপ্রিল ৯, ২০২০
ত্রাণের জন্য নির্যাতিত সেই বৃদ্ধার পাশে জেলা প্রশাসক রাজশাহী।

রাজশাহী: ত্রাণ চাইতে গিয়ে রাজশাহীতে ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) মেম্বারের লোকজনের হাতে মারধরের শিকার হন বৃদ্ধা রেজিয়া বেগম।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার চাঁদপুর কাঁকরামারী ঘোষপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নজরে আসার পর তার পাশে দাঁড়িয়েছেন রাজশাহীর জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক।

বুধবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওই বৃদ্ধা নারীকে দেখতে যান তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে রেজিয়া ইউপি সদস্য নৈয়ব আলীর কাছের লোক হিসেবে পরিচিত নাজমুল হকের কাছে যান ত্রাণের স্লিপ চান। এ সময় নাজমুল হক স্লিপ দেননি। উল্টো নাজমুল হকের নেতৃত্বে তার শ্যালক বজলু ও তার পরিবারের সদস্যরা লাঠিসোটা দিয়ে বৃদ্ধা রেজিয়া বেগমকে এলোপাতাড়িভাবে পেটাতে শুরু করেন এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন।

বুধবার দুপুরে চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওই বৃদ্ধাকে দেখতে গেলে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে কঠোর ব্যবস্থার নির্দেশনা দিয়েছেন জেলা প্রশাসক হামিদুল হক। জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে তাকে খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ওই নারীর চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফেরার পর যাতে খাদ্যের অভাবে না পড়ে সেজন্য ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক হামিদুল হক বলেন, খবর পেয়ে বুধবার সকালে আমি নিজেই ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। এটি একটি দুঃখজনক ঘটনা। যারাই ঘটিয়ে থাকুক এটা ঠিক হয়নি। আমি চিকিৎসাধীন নারীর সঙ্গে দেখা করে তাকে খাদ্যসামগ্রী ও বাড়ি ফিরে যাওয়ার পর যাতে তার খাদ্য কষ্ট না হয় সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। এতে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে, রাজশাহী জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ওই নারীকে খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয়েছে। রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহীদুল্লাহ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে কঠোর ব্যবস্থার নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর ইফতে খায়ের আলম বলেন, বিষয়টি জানার পরপরই পুলিশ সুপার ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের নির্দেশ দেন ও অসহায় বৃদ্ধা নারীকে খাদ্য সহায়তা দেন। এ বিষয়টি তিনি নিজেই সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছেন।

প্রশাসনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের নির্দেশনার পর ভুক্তভোগী রেজিয়ার দায়ের করা মামলায় মালেকা নামে এক নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রাজশাহীর চারঘাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সমিত কুমার কুণ্ডু বলেন, মামলার প্রধান আসামি মালেকাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর আগে আরেক আসামি নাজমুলকে গ্রেফতার করা হয়। বাকিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৪৭ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৮, ২০২০
এসএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa