ঢাকা, শুক্রবার, ৪ আষাঢ় ১৪২৮, ১৮ জুন ২০২১, ০৭ জিলকদ ১৪৪২

জাতীয়

সচেতন হচ্ছে না মানুষ, জনসচেতনতা তৈরিতে ব্যস্ত প্রশাসন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৬ ঘণ্টা, এপ্রিল ৮, ২০২০
সচেতন হচ্ছে না মানুষ, জনসচেতনতা তৈরিতে ব্যস্ত প্রশাসন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: দেশে প্রতিনিয়ত গভীর হচ্ছে করোনা সংকট। এ সংকট মোকাবেলায় সামাজিক দূরুত্ব ও জনসচেতনতা তৈরি করতে নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করছে সরকার।

সেই আলোকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার প্রশাসন মাঠে কাজ করলেও জেলাবাসীকে সামাজিক দূরুত্ব বজায় রাখা এবং ঘরমুখো করা যাচ্ছে না যেন। অনেকটা উৎসবের আমেজে মেতে উঠেছে মানুষ।

বিভিন্নপাড়া মহল্লায় ওলিতে-গলিতে জনসাধারণের জটলা চোখে পড়ার মতো। সে সঙ্গে প্রধান শহরগুলোতে রয়েছে যানবাহনের ভিড়। এ যেন স্বাভাবিক পরিস্থিতির এক চিত্র।  

ইতোমধ্যে জেলায় করোনার উপসর্গ নিয়ে দুই জন মারা গেলেও সাধারণ মানুষের যেন টনকই নড়ছে না। নানা অজুহাতে তারা বাইরে ঘোরা ফেরা করছে। প্রয়োজন তো বটেই অপ্রয়োজনেও অনেকে বিভিন্ন পয়েন্টে ভিড় করছে। জেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী ও পুলিশ প্রশাসনের একাধিক দল বিভিন্ন স্থানে টহল দিয়ে জনসচেতনতা তৈরি করলেও কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। প্রশাসনের অভিযানে শহরের চিত্র কিছুটা শান্ত থাকলেও অল্প সময়ের মধ্যে শৃঙ্খলা ভেঙে পড়ে। সরকারি নির্দেশনা তারা কোনভাবে গুরুত্ব দিচ্ছে না। এ বিষয়ে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার মত দেন বিশিষ্টজনরা।
জেলা নাগরিক ফোরামের সভাপতি পীযূষ কান্তি আচার্য বলেন, করোনার জন্য সবাইকে সচেতন করা হচ্ছে। মানুষকে আরও সচেতন হতে হবে।  

জেলা প্রশাসক হায়াৎ উদ-দৌলা খান বলেন, আমরা মানুষকে ঘরে ফিরতে সচেতন করছি। জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও সেনাবাহিনী নিয়মিত টহল দিচ্ছে। প্রয়োজন বোধে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪০ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৮, ২০২০
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa