bangla news

রাতের আঁধারে ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন এমপি খোকন

জুলফিকার আলী কানন, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৪-০৪ ২:৩৯:০৮ পিএম
রাতের আধাঁরে দরিদ্র মানুষের ঘরে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন এমপি খোকন। ছবি: বাংলানিউজ

রাতের আধাঁরে দরিদ্র মানুষের ঘরে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন এমপি খোকন। ছবি: বাংলানিউজ

মেহেরপুর: কর্মহীন এবং অসহায় একটি মানুষও না খেয়ে থাকবে না ইনশাআল্লাহ। খবর দিলেই খাবার নিয়ে পৌঁছে যাবো আমি। খেটে খাওয়া মানুষগুলোর কাছে আমার শুধু একটিই অনুরোধ নিজেকে বাঁচাতে, পরিবার সমাজ ও দেশের মানুষকে বাঁচাতে ঘরের মধ্যে থাকুন। সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন। করোনা ভাইরাস থেকে সচেতন করতে এভাবেই রাতদিন সমানভাবে খাবারের বস্তা নিয়ে কর্মহীন অসহায় মানুষের দারে দারে যাচ্ছেন মেহেরপুর-২ গাংনী আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন।

জানা যায়, দেশে লকডাউন ঘোষণা না করলেও বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে বর্তমান সরকার সামাজিক দূরত্বে অবস্থান ও মানুষজনকে ঘরের বাইরে না আসার জন্য নির্দেশ দিয়েছে সরকার। এ কারণে গাংনী পৌরসভার ১৫০ জন, বামন্দী, তেঁতুলবাড়িয়া, মটমুড়া, কাথুলি, গাঁড়াডোব, রাইপুর, কাজীপুর ইউনিয়নের প্রায় দেড় হাজার মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। এজন্য ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এমপি সাহিদুজ্জামান খোকন এসব কর্মহীন মানুষের বাড়িতে চাল, ডাল, আলু, তেল, লবণ, সাবান, হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ নিত্য প্রয়োজনীয় ভোগ্যপণ্য পৌঁছে দিচ্ছেন।

এমপি সাহিদুজ্জামান খোকন বাংলানিউজকে বাংলানিউজকে বলেন, এ উপজেলার একজন কর্মহীন মানুষকেও না খেয়ে মরতে দেওয়া হবে না ইনশাআল্লাহ। করোনা ভাইরাস একটি বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ। এটির মোকাবেলা করতে সবাইকে এক সঙ্গে কাজ করতে হবে। করোনা ভাইরাসের এই আপাদকালীন সময়ে বিশেষ করে যারা খেটে খাওয়া মানুষ আছেন। তারা এই ঝুঁকিপূর্ণ সময়টা ঘরের বাইরে যাবেন না। এই সময়ে আমি আপনাদের বাড়িতে বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেবো। তবে যারা বাড়ির বাইরে আসবেন তাদের কোনো খাবার দেওয়া হবেনা বলেও হুশিয়ারী দেন তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৪, ২০২০
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   মেহেরপুর
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-04-04 14:39:08