bangla news

‘সকাল থেকে আয় ৩০ টাকা, সংসার চালাবো কিভাবে’

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৩-২৯ ১:১০:৪০ পিএম
রিকশা চালক ওবাদুল হোসেন। ছবি: বাংলানিউজ

রিকশা চালক ওবাদুল হোসেন। ছবি: বাংলানিউজ

মাগুরা: ‘করোনা ভাইরাসের কারণে কেউ রিকশায় উঠতে চায় না। সেই সকাল থেকে এখন পর্যন্ত মাত্র ৩০ টাকা আয় করছি। সংসারে টানাটানি শুরু হয়েছে গেছে অনেক আগেই। কি করবো ভাই, ঘরে বসে থাকলি তো আমাদের চলে না। এক বেলা রিকশা না চালালে হাত মুখে যায় না ভাই।’ এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন মাগুরার নিজনান্দুয়ালী গ্রামের রিকশা চালক ওবাদুল হোসেন।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে মাগুরা শহরজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। দোকানপাট, অফিস আদালত, সব বন্ধ রয়েছে। ভয়ে ঘর থেকে কেউ বের হচ্ছে না। এরমধ্যে চরম ভোগান্তিতে রয়েছে নিম্ম আয়ের মানুষ। তাই পেটের দায়ে রাস্তায় নেমেছেন ওবাদুরের মতো আরও অনেকে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শহরজুড়ে সুনসান নীরবতা। কোথাও কোনো গাড়ির আওয়াজ নেই। শহরে ব্যস্ততম ভায়না মোড় সেখানেও নেই কোনো মানুষ। শুধু দিনমজুর খেটে খাওয়া মানুষ পেটের দায়ে ঘর থেকে বের হয়েছে।

নতুন বাজার এলাকার বাসিন্দা বিপ্লব সরকার বাংলানিউজকে বলেন, প্রতিদিনের মতো সবজির হাট বসে এখানে। তবে সাধারণ মানুষ সরকারি নিষেধজ্ঞা মান্য করেই দূরত্ব বজায় কেনাকাটা করছে।

মাগুরা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবু সুফিয়ান বাংলানিউজকে বলেন, করোনা কারণে উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতিতে খেটে খাওয়া নিম্ম আয়ের মানুষ না খেয়ে থাকবে না। সরকারের পক্ষ থেকে চাল-ডাল, তেল, লবন, সাবান প্যাকেট করে তালিকা তৈরি করে পৌর কাউন্সিলের মাধ্যম আমরা তাদের বাড়িতে পৌঁছে দিচ্ছি। 

তিনি আরও বলেন, যেসব মানুষ এখন খাবার পাননি তারা পেয়ে যাবেন। আমাদের পর্যাপ্ত খাদ্যপণ্য মজুদ রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৫৯ ঘণ্টা, মার্চ ২৯, ২০২০
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   মাগুরা করোনা ভাইরাস
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-03-29 13:10:40