bangla news

ওয়েবসাইট হ্যাক করে ম্যাজিস্ট্রেট সাইয়েমাকে বার্তা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৩-২৮ ৩:১৪:২২ এএম
...

...

ঢাকা: করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশনা না মানায় তিন বৃদ্ধকে কান ধরিয়ে দাঁড় করে সেই ছবি নিজ মোবাইলে ধারণ করায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন যশোরের মনিরামপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসান।

শুক্রবার (২৭ মার্চ) এসিল্যান্ড সাইয়েমা হাসান তিন বৃদ্ধকে কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখার কিছু ছবি সামাজিক মাধ্যমে ফেসবুকে ভাইরাল হলে দেশজুড়ে নিন্দা ও সমালোচনার ঝড় ওঠে। বিক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া আসতে থাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতেই। এমনই প্রেক্ষাপটে যশোরের আওতাধীন এ উপজেলার সরকারি ওয়েবসাইটটি (www.manirampur.jessore.gov.bd) হ্যাক করা হয়।

ঠিক কখন ওয়েবসাইটটি হ্যাক হয় সেবিষয়ে কোন সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়া না গেলো শুক্রবার সন্ধ্যার পরেই কোন এক সময়ে এমনটি করা হয়েছে বলে ধারণা সাইবার বিশেষজ্ঞদের। রাত পৌনে ১২টা পর্যন্ত ওয়েবসাইটটিতে হ্যাকারদের রেখে যাওয়া পরিবর্তন ছবি দেখা গেছে। অবশ্য এ প্রতিবেদন লেখার সময়ে হ্যাকারদের করা পরিবর্তন মুছে ফেলা হয়েছে বলে দেখা যায়।

তবে এর আগে হ্যাকড অবস্থায় হ্যাকাররা বেশ কিছু পরিবর্তন আনেন ওয়েবসাইটটি। এর মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, ওয়েবসাইটটির টপ ব্যানারে এসি ল্যান্ড সাইয়েমা হাসানের বৃদ্ধ নাগরিকদের কান ধরে দাঁড় করিয়ে রাখার ছবি যুক্ত করা। অবশ্য সেই ছবিতে নির্যাতিতদের ছবি অস্পষ্ট করে দেয় হ্যাকাররা।

হ্যাক করে ওয়েবসাইটের নোটিশ সেকশনেও একটি পরিবর্তন আনা হয়। ‘শিক্ষিত লোক হয়ে অশিক্ষিত লোকের মতো কাজ করলেন যশোর জেলা মনিরামপুর থানার সহকারী কম…” শিরোনামে একটি নোটিশ যুক্ত করা হয়। ব্যাকডেট ২৩ মার্চ তারিখে নোটিশটি প্রকাশ দেখিয়ে সেখানে লেখা হয়, তর্কের খাতির মেনেই নিলাম যে তিনি চাল ডাল না, কাজ করতেই এসেছিলেন। কিন্তু রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা ব্যবহার করে বাবার বয়সী একজন মুরুব্বীকে কানে ধরিয়ে সেটার ছবি এভাবে ছড়িয়ে দিতে পারেন না’।

সেখানে আরও লেখা হয়, ‘অন্তত সাইবার ক্রাইম আইন আপনাকে সেই ক্ষমতা দেয় নি। এসব ভণ্ডামি বাদ দেন, আপনি সরকারি বেতন নেন রাষ্ট্রের নির্দেশ কিংবা সরকারি নির্দেশ পালনের জন্য। ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে একজন বাবার বয়সী মুরুব্বীকে হেনস্তার জন্য নয়।

ওয়েবসাইটটির হ্যাকার হিসেবে ‘টিম ডোনজ’ হিসেবে নিজেদের পরিচয় ব্যবহার করে হ্যাকাররা। আর নিচে নিজেদের স্লোগানে লেখা হয়– “উই হ্যাক টু প্রটেক্ট বাংলাদেশ”। অনুসন্ধানে জানা যায়, এই স্লোগান ব্যবহার করে সাইবার৭১ নামে এথিক্যাল হ্যাকারদের একটি কমিউনিটি। তবে এই হ্যাকিং সাইবার৭১ এর পক্ষ থেকে করা হয়নি বলে দাবি সংগঠনের পরিচালক আব্দুল্লাহ আল-জাবের হৃদয়। 

বাংলানিউজকে তিনি বলেন, এ স্লোগানটি আমাদের। টিম ডোনজ ও আমাদের সহযোগী একটি দল। কিন্তু এই কাজটি আমরা করিনি। কারা করেছে এই মুহুর্তে আমাদের জানা নেই। ওয়েবসাইটটির অ্যাডমিন যারা তারা হয়তো বের করতে পারবেন। আমরা নিজেরা করলে নিজেদের চিহ্নের সঙ্গে যায় এমন কোনো ক্লু নিশ্চয়ই রেখে আসতাম না’।

বাংলাদেশ সময়: ০৩০২ ঘণ্টা, মার্চ ২৮, ২০২০
এসএইচএস/ওএইচ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-03-28 03:14:22