ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

পুলিশের আত্মত্যাগ জাতি চিরদিন স্মরণ করবে: উপমন্ত্রী শামীম

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০৬ ঘণ্টা, মার্চ ১, ২০২০
পুলিশের আত্মত্যাগ জাতি চিরদিন স্মরণ করবে: উপমন্ত্রী শামীম

শরীয়তপুর: বাংলাদেশ পুলিশবাহিনীর আত্মত্যাগ বাঙালি জাতি চিরদিন শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে বলে মন্তব্য করেছেন পানিসম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম।  

রোববার (১ মার্চ) দুপুরে শরীয়তপুর পুলিশ লাইন্সে আয়োজিত পুলিশ মেমোরিয়াল ডে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।   

বিগত ২০১৮ সাল পর্যন্ত দায়িত্বরত অবস্থায় জীবন উৎসর্গকারী পুলিশ সদস্যদের স্মরণে সারাদেশের মতো শরীয়তপুরেও পুলিশ মেমোরিয়াল ডে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

 

উপমন্ত্রী শামীম বলেন, বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রামে পাকিস্তানি হানাদারবাহিনী সর্বপ্রথম আঘাত হানে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে। সেদিন অনেক পুলিশ সদস্য শাহাদাৎ বরণ করেন। এছাড়া এই পুলিশ বাহিনীর সদস্যরাই সর্বপ্রথম হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে পুলিশের অনেক সদস্য জীবন দিয়েছেন। তাই বাঙালি জাতি পুলিশের এই আত্মত্যাগ চিরদিন শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে।  

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে দেশ আজ সব ক্ষেত্রে উন্নতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। শুধু রাস্তাঘাট অবকাঠামো উন্নয়ন হলেই হবে না। সমাজের সব ক্ষেত্রে সুশাসন ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সমাজ থেকে সন্ত্রাস, দুর্নীতি, অন্যায়-অবিচার, সহিংসতা, মাদক, বাল্যবিয়ে দূর করতে হবে। সরকারিবাহিনী হিসেবে এ সব দায়িত্ব পুলিশকে পালন করতে হবে। সরকারের ভাবমূর্তি অনেকটা পুলিশের ওপর নির্ভর করে। তাই পুলিশবাহিনীকে আরও দায়িত্বশীল হয়ে কাজ করতে হবে।  

পুলিশ সুপার এসএম আশরাফুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- শরীয়তপুর-১ (পালং-জাজিরা) আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু, জেলা ও দায়রা জজ প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস, জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ছাবেদুর রহমান খোকা শিকদার ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে।  

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ইকবাল হোসেন অপু বলেন, জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বর্তমান পুলিশ বাহিনীকে ঢেলে সাজিয়ে আধুনিক ও জনবান্ধব বাহিনীতে পরিণত করেছেন। পুলিশের দায়বদ্ধতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করেছেন। পুলিশের আচরণে ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। বর্তমানে পুলিশের কাছে সেবা নিতে গিয়ে জনগণকে হয়রানির শিকার হতে হয় না। এভাবে সব ক্ষেত্রে দেশ এগিয়ে গেলে আমরা উন্নত জাতি হিসেবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে পারবো।  

এ সময় সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল হাসেম তপাদার, নড়িয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান একেএম ইসমাইল হক, ভেদরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির মোল্যা, গোসাইরহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান ঢালী, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাহাবুর রহমান শেখসহ বিভিন্ন থানার কর্মকর্তা ও গণ্যমান্য সামাজিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।  

অনুষ্ঠানে ২০১৮ সাল পর্যন্ত পুলিশ বাহিনীতে দায়িত্বরত অবস্থায় শাহাদাৎ বরণকারী শরীয়তপুরের ১৪ জন পুলিশ সদস্যের পরিবারের হাতে আর্থিক অনুদান তুলে দেওয়া হয়।  

বাংলাদেশ সময়: ১৭০০ ঘণ্টা, মার্চ ০১, ২০২০
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa