bangla news

নির্মাণাধীন সেই সড়কের কার্পেটিং তুলে ফেললো জনতা

স্বপন চন্দ্র দাস, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-২০ ৮:০০:০১ পিএম
নির্মাণাধীন সেই সড়কের কার্পেটিং তুলে ফেললো জনতা

নির্মাণাধীন সেই সড়কের কার্পেটিং তুলে ফেললো জনতা

সিরাজগঞ্জ: নির্মাণকাজে অনিয়মের অভিযোগে সিরাজগঞ্জের সেই রাস্তার বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং তুলে ফেলছে স্থানীয় জনতা। এদিকে ওই রাস্তার নির্মাণকাজ বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ। 

অপরদিকে সাংবাদিকদের মারপিটের ঘটনায় বিভিন্ন মিডিয়ায় সাক্ষাৎকার দেওয়ায় গ্রামবাসীদের প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে আসামিদের বিরুদ্ধে। 

বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরের পর সরেজমিনে সদর উপজেলার শিয়ালকোল ইউনিয়নের খামার পাইকোশা গ্রামে গিয়ে দেখা যায় স্থানীয় লোকজন রাস্তার কার্পেটিং তুলে ফেলেছে। এ আগে বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ওই রাস্তার কাজে অনিয়ম নিয়ে প্রতিবেদন করতে গেলে ৫ সাংবাদিকের উপর হামলা চালিয়ে মারপিট করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলী ও তার সহযোগীরা।  

খামার পাইকোশা গ্রামের নুর জাহান, আলেয়া বেগম, সেলিম রেজা, আল-আমিনসহ অনেকেই বলেন, দু'দিন আগে কার্পেটিং করা হয়েছে। আর এখন একটা ধরে টান দিলেই পুরো কার্পেটিং উঠে যাচ্ছে। ছোট ছোট ছেলে-পেলে টেনে টেনে এসব কার্পেটিং তুলে ফেলছে। তারা বলেন, বুধবার সাংবাদিকরা রাস্তার কাজে অনিয়মের ছবি তুলতে আসায় তাদের উপর হামলা চালিয়েছে ঠিকাদারের লোকজন। এ ঘটনায় সাংবাদিকদের সামনে সাক্ষাৎকার দেওয়ায় এবং সাংবাদিকদের করা মামলায় সাক্ষি হিসেবে নাম দেওয়ার কারণে সাব-ঠিকাদার সাইফুল ইসলাম সশরীরে এসে হুমকি দিয়ে যায়। 

আরও পড়ুন: সিরাজগঞ্জে সাংবাদিক মারপিটের মামলায় প্রকৌশলী জেলহাজতে

স্থানীয় ইউপি সদস্য আজাদুল ইসলাম বলেন, রাস্তার কাজ খারাপ হওয়ার কারণে স্থানীয় লোকজন বেশ কিছু স্থানে পিচ ঢালাই করা কার্পেটিং তুলে ফেলেছে। 

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ সূত্র জানায়, ৩ কোটি ২৮ লাখ টাকা ব্যয়ে বহুলী জিসি-কোনাবাড়ি এনএইচডাব্লিউ ভায়া চন্ডিদাসগাঁতী হাট রোড নামে ৩৬৭০ মিটার এ সড়কটির নির্মাণকাজ শুরু হয় ২০১৮ সালের ১৬ জুলাই। দরপত্রের মাধ্যমে ঢাকার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ডলি কনস্ট্রাকশন কাজটি পায়। প্রথমদিকে ৩০ অক্টোবর ২০১৯ পর্যন্ত কাজটি শেষ করার মেয়াদ থাকলেও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেয়াদ বাড়িয়ে নেয়। বর্তমাণে রাস্তাটির বেশিরভাগ কাজ শেষ হয়েছে।   

আরও পড়ুনরাস্তার কাজে অনিয়ম, রিপোর্ট করায় ৫ সাংবাদিককে মারধর

এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী আবু সায়েদ জানান, এর আগেও নিম্নমোনের ইট ব্যবহারের অভিযোগে ওই সড়কটির নির্মাণ কাজ বন্ধ করা হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে ইট টেস্ট করে আবারও কাজ শুরু করা হয়। বুধবার সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনা আমরা জানতে পেরে আবারও কাজ বন্ধ করে দিয়েছি। বিটুমিনসহ অন্যান্য উপকরণ পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর কাজ শুরুর অনুমতি দেওয়া হবে। 

বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সদর উপজেলার খামার পাইকোশা গ্রামে ওই রাস্তাটির নির্মাণ কাজে অনিয়মের সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে ৫ সাংবাদিকের উপর হামলা চালায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলী আমিরুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা।

এ ঘটনায় এনটিভি প্রতিনিধি শরীফুল ইসলাম ইন্না, এস এটিভির রহমত আলী, বাংলানিউজের স্বপন চন্দ্র দাস, ডেইলি ইন্ডিপেন্ডেন্টের নজরুল ইসলাম ও যায়যায়দিন পত্রিকার এইচ এম মোকাদ্দেসসহ ১০ গ্রামবাসী আহত হন। বিষয়টি নিয়ে সিরাজগঞ্জের সাংবাদিকমহল তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। এ ঘটনায় স্বপন চন্দ্র দাস বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১৫/২০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। 

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০
এসএইচ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-02-20 20:00:01