bangla news

মোটরসাইকেল চুরির দায়ে পুলিশ কনস্টেবল কারাগারে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-১৯ ৫:৩১:৫৩ পিএম
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রাম চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত চত্বর মোটরসাইকেল চুরির মামলায় গ্রেফতার পুলিশ কনস্টেবল তারিকুল ইসলামকে (২৪) কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।  তারিকুল রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার তরফবাহাদ্দি গ্রামের ইলিয়াস মিয়ার ছেলে।

মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত চত্বরে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা অবস্থায় এ মোটরসাইকেল চুরির ঘটনা ঘটে। পরে মোটরসাইকেলের মালিক আল আমিন আহমেদ বাদী হয়ে কুড়িগ্রাম সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগে জানা যায়, গত ১৮ ফেব্রুয়ারি কুড়িগ্রাম চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের প্রোসেস সার্ভার পদের কর্মচারী আল আমিন আহমেদ তাড়াহুড়ো করে আদালত চত্বরে মোটরসাইকেলের সঙ্গে চাবি রেখে অফিসে হাজিরা দিতে যান। তাৎক্ষণিক ফিরে এসে তার মোটরসাইকেলটি সেখানে দেখতে না পেয়ে চারদিকে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। পরে সিসি ক্যামেরায় দেখা যায় আদালত চত্বরের দায়িত্বে থাকা পুলিশ কনস্টেবল তারিকুল মোটরসাইকেলটি চালু করে দ্রুত সটকে পরছেন। বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে আল আমিন তার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ প্রশাসনকে জানান। পরে এ ঘটনায় আল আমিন বাদী হয়ে কুড়িগ্রাম সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
  
কুড়িগ্রাম চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট এস এম আব্রাহাম লিংকন বাংলানিউজকে জানান, কোর্ট চত্বরে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা অবস্থায় এমন ঘটনা সংঘটিত করা সত্যিই দুঃখজনক। এতে ব্যক্তির কলংক প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যায়। পুলিশ সুপার দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ায় মর্যাদা রক্ষা পেয়েছে।
কুড়িগ্রাম সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজার রহমান বাংলানিউজকে জানান, পুলিশ সুপারের নির্দেশে ঘটনার পরপরই অভিযান চালিয়ে মোটরসাইকেল উদ্ধার করে বাদীর জিম্মায় দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত তারিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
এফইএস/আরআইএস/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   কুড়িগ্রাম
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-02-19 17:31:53