bangla news

‘সরকার ৩৯ হাজার নারীকে বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ দিয়েছে’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-০৯ ৭:৪০:৩৪ পিএম
বক্তব্য রাখছেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। ছবি: বাংলানিউজ

বক্তব্য রাখছেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। ছবি: বাংলানিউজ

রাজশাহী: সরকার দেশের ৩৯ হাজার নারীকে বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা।

রোববার (৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজশাহী শিল্পকলা একাডেমি মিলনাতনে বিভাগীয় পর্যায়ের জয়িতাদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান। 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, কেবল তাই নয় শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্র, কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল চালু করা হয়েছে। ১০ লাখ ৪০ হাজার নারীকে ভিজিডি কার্যক্রমের আওতায় আনা হয়েছে। ৭ লাখ ৭০ হাজার নারীকে মাতৃত্বকালীন ভাতা দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্তের মাধ্যমে বিভিন্ন কার্যক্রমের ফলে ‘জেন্ডার গ্যাপ ইনডেক্স-২০১৯’ অনুযায়ী বিশ্বে বর্তমানে বাংলাদেশের অবস্থান ৫০তম, দক্ষিণ এশিয়ায় প্রথম এবং রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে পঞ্চম।   

জাতির পিতা তার সারাটা জীবন এ দেশের মানুষের জন্য রাজনীতি করে ব্যয় করেছেন উল্লেখ ফজিলাতুন নেসা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এ দেশের মহান স্বাধীনতা অর্জনের পরে নির্যাতিত, নিপীড়িত নারীদের জন্য নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন। মুক্তিযুদ্ধে নির্যাতিত নারীদের পুর্নবাসন এবং জার্মান, ব্রিটেন, ভারত থেকে ডাক্তার এনে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছিলেন। তাদের সামাজিকভাবে প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে বিয়ের ব্যবস্থা করেছিলেন। এসব নির্যাতিত নারীদের বিয়েতে অভিভাবকের নামের স্থলে তিনি নিজের নাম লেখার অনুমতি দিয়ে বলেছিলেন বলে দাও বাবার নাম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, ঠিকানা ধানমন্ডি ৩২। 

‘আর তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীদের মুক্তির জন্য ২০১১ সালে জয়িতা কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। শেখ হাসিনার বারতা, নারী-পুরুষের সমতা। দেশব্যাপী নারীদের অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করার লক্ষ্যে জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ কার্যক্রম শুরু করা হয়। বর্তমানে এ কার্যক্রমের সুফল পাওয়া যাচ্ছে। এখন দেশে ১৮০টি স্টলের মাধ্যমে ১৮ হাজার নারী উদ্যোক্তা তাদের উৎপাদিত পণ্য বিপণন করতে পারছেন।’ 

অনুষ্ঠানে জীবনযুদ্ধে জয়ী রাজশাহী বিভাগের মোট ৪০ জন জয়িতাকে প্রতিমন্ত্রী উত্তরীয় পরিয়ে সম্মানিত করেন। এদের মধ্য থেকে পাঁচটি ক্যাটাগরিতে পাঁচজনকে শ্রেষ্ঠ জয়িতা এবং অন্য পাঁচজনকে রার্নাস আপ জয়িতা নির্বাচন করা হয়। 

অনুষ্ঠানের শেষে প্রতিমন্ত্রী শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের অর্থ পুরস্কার, সনদ ও ক্রেস্ট তুলে দেন। অন্যদের সনদ ও ক্রেস্ট দেন।

রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার হুমায়ুন কবীর খন্দকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য আদিবা আনজুম মিতা, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী রওশন আক্তার, মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের মহাপরিচালক পারভীন আক্তার, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ফরিদা পারভীন, রাজশাহী রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক এ কে এম হাফিজ আক্তার ও রাজশাহী জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।  

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০২০
এসএস/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   রাজশাহী
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2020-02-09 19:40:34