ঢাকা, সোমবার, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭, ১০ আগস্ট ২০২০, ১৯ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

ট্রাভেল এজেন্সির লাইসেন্স নবায়নের সুযোগ আসছে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৩৯ ঘণ্টা, জানুয়ারী ২১, ২০২০
ট্রাভেল এজেন্সির লাইসেন্স নবায়নের সুযোগ আসছে

ঢাকা: শর্ত ভাঙলে জরিমানা দিয়ে ট্রাভেল এজেন্সির লাইসেন্স নবায়নের সুযোগ ও শাখা খোলার বিধান রেখে একটি আইনের খসড়া নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সোমবার (২০ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ‘বাংলাদেশ ট্রাভেল এজেন্সি (নিবন্ধন ও নিয়ন্ত্রণ) (সংশোধন) আইন, ২০১৯’ এর অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এতে সভাপতিত্ব করেন।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম প্রেসব্রিফিংয়ে জানান, ট্রাভেল এজেন্সিগুলোর কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য ‘বাংলাদেশ ট্রাভেল এজেন্সি (নিবন্ধন ও নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩’ প্রণয়ন করা হয়। প্রণীত আইনটিতে বেশ কয়েকটি বিষয়ে অস্পষ্টতা থাকায় ট্রাভেল এজেন্সির সেবা দেওয়া ও বিদ্যমান আইনের বিধানসমূহ বাস্তবায়নকালে ক্ষেত্রবিশেষে নানা রকম জটিলতা সৃষ্টি হচ্ছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সনদ নবায়নের আবেদন করতে না পারলে ওই এজেন্সির নবায়নের আর সুযোগ থাকে না। মালিকানা হস্তান্তরের বিধান নেই। নিবন্ধন কর্তৃপক্ষের অর্থদণ্ড দেওয়ার ক্ষমতা না থাকায় সামান্য অপরাধের জন্য এজেন্সির নিবন্ধন স্থগিত বা বাতিল করতে হচ্ছে। এছাড়া ট্রাভেল এজেন্সির শাখা খোলার বিধান নেই। এই কারণে বিদ্যমান আইন যুগোপযোগী করাসহ আইনটির কতিপয় ধারা সংশোধনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, প্রস্তাবিত আইনের ‘পরিবহন’ অর্থ আকাশ, নৌ, সমুদ্র বা সড়ক পথে পরিবহনের স্থলে ‘জলপথ, স্থলপথ, আকাশ পথে পরিবহন’ করা হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নবায়ন আবেদন করা না হলে বিধি দ্বারা নির্ধারিত জরিমানা দিয়ে নবায়নের আবেদন দাখিল করতে পারবে বলে বিধান রাখা হয়েছে। প্রস্তাবিত আইনে ট্রাভেল এজেন্সির নিবন্ধন সনদ হস্তান্তর এবং শাখা কার্যালয় স্থাপনের বিধান অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

সংশোধিত আইনে নিবন্ধন কর্তৃপক্ষের সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানা আরোপের বিধান রাখা হয়েছে এবং শাস্তির মেয়াদ বাড়ানো এবং মামলা নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে ‘কোড অব ক্রিমিনাল প্রসিডিউর, ১৮৯৮’ এর বিধানাবলী প্রযোজ্য হবে বলে বিধান রাখা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, প্রস্তাবিত খসড়া আইনটি অনুমোদিত হলে ট্রাভেল এজেন্সির নবায়ন আবেদন দাখিলে বিলম্বের জন্য লাইসেন্স বাতিলের পরিবর্তে বিধি দ্বারা নির্ধারিত জরিমানা আদায়ের মাধ্যমে সনদ নবায়নের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

তিনি বলেন, আইন সংশোধন হলে নির্ধারিত শর্ত সাপেক্ষে মালিকানা হস্তান্তরের সুযোগ সৃষ্টি হবে। ট্রাভেল এজেন্সিগুলো অনুমোদন সাপেক্ষে শাখা অফিস খুলতে পারবে।

এতে ট্রাভেল এজেন্সি থেকে কাঙ্ক্ষিত সেবা প্রাপ্তি সহজ ও সরকারের রাজস্ব আয় বাড়বে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২০, ২০২০
এমআইএইচ/আরবি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa