bangla news

ঝালকাঠি জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতিসহ আটক ৬

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০১-১৫ ৯:০৭:৩০ পিএম
ঝালকাঠিতে পুলিশের সঙ্গে আটক ব্যক্তিরা। ছবি: বাংলানিউজ

ঝালকাঠিতে পুলিশের সঙ্গে আটক ব্যক্তিরা। ছবি: বাংলানিউজ

ঝালকাঠি: ঝালকাঠিতে যুবলীগ নেতাকে মারধর, হাতুরি পেটা ও চাঁদা দাবির মামলায়  জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সৈয়দ মিলনসহ যুব ও ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) দিনগত রাতে শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয় জানায় পুলিশ।

এসময় তাদের কাছ থেকে ১২টি ধারালো দেশীয় রামদা, ৪টি জিআই পাইপ উদ্ধার করা হয়েছে। 

আটকরা হলেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও যুবলীগ নেতা সৈয়দ হাদিসুর রহমান মিলন (৩৬), সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তরিকুল ইসলাম অপু (২৯), যুবলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম (৪০), সুমন (৩৪), মামুন খান (৩৫) ও কামাল (৩৪)। 

এর আগে ঝালকাঠি পৌর এলাকার এক নম্বর চাঁদকাঠি ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি আবুল কালাম বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। মামলায় সাতজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করা হয়।

মামলার এজাহারে জানা গেছে, পাঁচ লাখ টাকা ধার নিয়ে দীর্ঘদিন  টালবাহানা করে পরিশোধ করেনি সৈয়দ মিলন। পরে ধার নেওয়া টাকা পরিশোধ না করে মাসে ৫০ হাজার টাকা কিস্তিতে চাঁদার টাকা পরিশোধের ঘোষণা দেয়। বিষয়টি এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে তারা সালিশ মীমাংসার কথা বলেন।

৫ জানুয়ারি এলজিইডির সামনে সৈয়দ মিলনের নেতৃত্বে সাত-আট জন আবুল কালামকে হামলা ও মারধর করে গুরুতর আহত করে। এসময় সঙ্গে থাকা মোবাইল, টাকাসহ ৫০ হাজারের বেশি টাকার মালামাল ছিনিয়ে নিয়ে চাঁদার টাকা নেওয়ার ঘোষণা দেয় হামলাকারীরা। 

এ ঘটনায় মঙ্গলবার দিনগত রাতে কালাম সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। 

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুরে ঝালকাঠি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. খলিলুর রহমান জানান, মামলার আসামি হিসেবে আটকের অভিযান চালিয়ে ডাক্তার পট্টির বাসা থেকে সৈয়দ মিলনকে আটক করা হয়। এসময় তার শয়ন কক্ষ থেকে ১২টি ধারালো দেশীয় রামদা, ৪টি জিআই পাইপ উদ্ধার করা হয়েছে। 

পাশাপাশি তার বাসা থেকেই সাইফুল, মামুন, সুমন, কামালকে আটক করা হয়। 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের আদালতে সোপর্দ করা হবে বলেও জানান ওসি। 

বাংলাদেশ সময়: ২১০৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২০
এমএস/এবি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ঝালকাঠি
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-01-15 21:07:30