bangla news

দুর্নীতির অভিযোগে ইমনকে দুদকে তলব, তথ্য চেয়ে ডিসিকে চিঠি 

নিজস্ব প্রতিবেদক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০১-০৬ ৭:৪১:২১ পিএম
এনামুল হক ইমন। ছবি: সংগৃহীত

এনামুল হক ইমন। ছবি: সংগৃহীত

জাতীয় পাওয়ার গ্রিডের সাবেক পরিচালক, সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল কবির ইমনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অনুসন্ধান শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। 

ইমনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছে দুদক। আগামী ১৫ জানুয়ারি তাকে দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে সুনামগঞ্জ পাওয়ার গ্রিড কোম্পানির বিদ্যুৎ সাব স্টেশন নির্মাণ প্রকল্পের জন্য জমির হুকুম দখলের বিষয়ে তথ্য চেয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে জেলা প্রশাসককে (ডিসি)। 

রোববার (০৬ জানুয়ারি) দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে এ বিষয়ে পৃথক চিঠি পাঠানো হয়েছে। ইমনের বিরুদ্ধে অভিযোগের অনুসন্ধান কর্মকর্তা হিসেবে সংস্থাটির উপ-পরিচালক মো. নূরুল হুদা এ চিঠি পাঠিয়েছেন। 

দুদকের একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। জানা যায়, জাতীয় পাওয়ার গ্রিডের সাবেক পরিচালক এনামুল কবির ইমনের বিরুদ্ধে তদবির বাণিজ্য, সরকারি কাজের কমিশন আদায় ও দুর্নীতির মাধ্যমে সরকারি অর্থ আত্মসাতসহ বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে।

জ্ঞাত আয় বহির্ভুত তার বিপুল অবৈধ সম্পদের খোঁজে এরই মধ্যে মাঠে নেমেছে দুদক। এ বিষয়ে অনুসন্ধান করে প্রতিবেদন দাখিল করতে দুদকের উপ-পরিচালক মো. নূরুল হুদাকে দায়িত্ব দিয়েছে কমিশন।

ইমনের কাছে পাঠানো দুদকের চিঠিতে বলা হয়েছে, তার বিরুদ্ধে তদবির বাণিজ্য ও সরকারি অর্থ আত্মসাতসহ বিভিন্ন অভিযোগের সুষ্ঠু অনুসন্ধানের স্বার্থে বক্তব্য গ্রহণ করা প্রয়োজন। এ বিষয়ে ১৫ জানুয়ারি সকাল ১০টায় তাকে দুদকে হাজির হতে হবে। অন্যথায় অভিযোগের বিষয়ে তার কোনো বক্তব্য নেই বলে মনে করবে দুদক। 

তাকে নিজের ও স্ত্রী, পুত্র, কন্যাসহ তার ওপর নির্ভরশীল ব্যক্তিদের জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্টের (যদি থাকে) ফটোকপি সঙ্গে আনতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো দুদকের চিঠিতে ইমনের বিভিন্ন দুর্নীতির তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে। 

ওই চিঠিতে সুনামগঞ্জ পাওয়ার গ্রিড কোম্পানির জন্য বিদ্যুত সাব স্টেশন নির্মাণ প্রকল্পের অনুকূলে আরজ আলীর জমির হুকুম দখলের বিষয়ে ১৫ জানুয়ারির মধ্যে প্রয়োজনীয় নথিপত্র চাওয়া চাওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আর কোনো রেকর্ড ও নথি থাকলে তাও দিতে অনুরোধ করা হয়েছে।

সৌজন্যে: বাংলাদেশ প্রতিদিন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৬, ২০১৯
এমএ/ 

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   সুনামগঞ্জ
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-01-06 19:41:21