bangla news

ধান সংগ্রহে লটারির মাধ্যমে কৃষক নির্বাচন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০১-০৩ ৩:১২:০৭ পিএম
কৃষক নির্বাচনের লটারি করা হচ্ছে। ছবি: বাংলানিউজ

কৃষক নির্বাচনের লটারি করা হচ্ছে। ছবি: বাংলানিউজ

জামালপুর: বকশীগঞ্জে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ন্যায্যমূল্যে খাদ্যশস্য (ধান) সংগ্রহ করার লক্ষ্যে লটারির মাধ্যমে নির্বাচন করা হচ্ছে কৃষকদের ভাগ্য।

শুক্রবার (০৩ জানুয়ারি) খাদ্যশস্য সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটির সভাপতি এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসম জমশেদ খোন্দকারের নেতৃত্বে উপজেলা সম্মেলন কক্ষে উন্মুক্ত লটারির মাধ্যমে ভাগ্যবান কৃষকদের নির্বাচন করা হয় যাদের কাছ থেকে ১০৪০ টাকা মণ দরে ধান কেনা হবে।

উপজেলা কৃষি অফিস থেকে জানা যায়, উপজেলায় চলতি আমন মৌসুমে ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। প্রতি মৌসুমে বাজারে ধানের দাম না থাকায় লাগাতার লোকসান দিয়ে আসছেন কৃষকরা। লোকসান পূরণ করার লক্ষ্যে কৃষকদের কাছ থেকে সরকারি মূল্যে ধান ক্রয় করার জন্য জেলা প্রশাসনের নির্দেশক্রমে লটারির মাধ্যমে নির্বাচন করা হচ্ছে কৃষকদের।

অনুষ্ঠানে বকশীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ তালুকদার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসম জমশেদ খোন্দকার, বকশীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগর, শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি ও বকশীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মানিক সওদাগর, বগারচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম লেচু, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ, পরিদর্শক শামিমা নাসরিন, গোদাম কমকর্তা গোলশানা খাতুন, কৃষি কর্মকর্তা মো. আলমগীর আজাদসহ স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তা ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, চলতি মৌসুমে উপজেলায় আমন ধান সংগ্রহ অভিযানে ২৬ টাকা কেজি দরে সরকারিভাবে ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১ হাজার ৫৪৩ মেট্টিক টন।

লক্ষ্যমাত্রার সবটুকু ধান লটারির মাধ্যমে নির্বাচিত কৃষকদের কাছ থেকে ক্রয় করা হবে। উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন ও বকশীগঞ্জ পৌরসভার তালিকাভুক্ত চাষিদের মধ্যে লটারির মাধ্যমে ১ হাজার ৫৪৩ জন কৃষককে নির্বাচন করা হয়। নির্বাচিত প্রতিজন কৃষকের কাছ থেকে ১ মেট্টিক টন করে ধান ক্রয় করা হবে।

উল্লেখ্য, জামালপুরের ৭টি উপজেলার মধ্যে শুধু সদর উপজেলায় কৃষকের অ্যাপ এর মাধ্যমে আমন ধান সংগ্রহ করা হবে। এছাড়া বকশীগঞ্জসহ বাকি উপজেলাগুলোর তালিকাভুক্ত কৃষকদের মধ্যেই কেবল লটারি করা হবে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৫১০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৩, ২০২০
আরএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   জামালপুর
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-01-03 15:12:07