bangla news

ভারতে নাগরিকত্ব আইন সংকট: ২ মাসে ৪৪৫ জনের অনুপ্রবেশ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০১-০২ ২:৩৪:১৭ পিএম
সংবাদ সম্মেলনে বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাফিনুল ইসলাম, ছবি: বাংলানিউজ

সংবাদ সম্মেলনে বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাফিনুল ইসলাম, ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: ভারতে নাগরিকত্ব তালিকা (এনআরসি) এবং সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) সংকটের পর গত দুই মাসে সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে ৪৪৫ জনকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

আটক সবাই বাংলাদেশি। তারা বিভিন্ন সময়ে ভারতে কাজের সন্ধানে গিয়েছিলেন। এদিকে, অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকানো বিজিবির রুটিন ওয়ার্ক। ফলে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বাংলাদেশের নতুন করে উদ্বেগের কারণ নেই বলে জানিয়েছে বিজিবি।

বৃহস্পতিবার (০২ জানুয়ারি) দুপুরে বিজিবি সদরদপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাফিনুল ইসলাম।

তিনি বলেন, গত এক বছরে সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে নারী-শিশুসহ ৯৭২ জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় ২৫৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আটক সবার বাড়ি বাংলাদেশে; স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে আমরা বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি। তারা বিভিন্ন সময়ে দালালের মাধ্যমে কাজের সন্ধানে পাড়ি দিয়েছিলেন বা পাড়ি দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

ভারতে নাগরিকত্ব আইন সংকটের পর অনুপ্রবেশের সংখ্যা জানতে চাইলে তিনি বলেন, গত নভেম্বর এবং ডিসেম্বরে ৪৪৫ জন অনুপ্রবেশ করেছেন। বিশেষ করে ঝিনাইদহ, মহেশপুর এবং সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে। তারাও সবাই বাংলাদেশের নাগরিক। কাজের সন্ধানে তারা সে দেশে পাড়ি দিয়েছিলেন। অনেকে বেঙ্গালুরুতে কাজ করতেন। নাগরিকত্ব আইন সংকটের পর তারা দেশে ফিরেছেন।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভারতে নাগরিকত্ব আইন সংকট নিয়ে বিজিবি উদ্বিগ্ন নয়। সীমান্তরক্ষী বাহিনী হিসেবে আমাদের দায়িত্ব আছে। অবৈধভাবে কেউ সীমান্ত অতিক্রম করতে পারবে না। এটি আমাদের রুটিন দায়িত্ব। এনআরসি বা সিএএ ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০২, ২০২০
পিএম/টিএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

জাতীয় বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
db 2020-01-02 14:34:17