ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

বছর জুড়ে আলোচনায় সিরাজগঞ্জের ট্রেন দুর্ঘটনা

স্বপন চন্দ্র দাস, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২৩৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১, ২০২০
বছর জুড়ে আলোচনায় সিরাজগঞ্জের ট্রেন দুর্ঘটনা ট্রেন দুর্ঘটনা। ছবি: বাংলানিউজ

সিরাজগঞ্জ: আলোচিত নানা ঘটনার জন্ম দিয়ে বিদায় নিচ্ছে ২০১৯ সাল। এ বছরটি সিরাজগঞ্জের জন্য বেশি আলোচিত একাধিক ট্রেন দুর্ঘটনার কারণে। এর  মধ্যে অরক্ষিত রেলক্রসিংয়ের জন্য ঘটে যাওয়া দুটি বড় দুর্ঘটনায় ১৭ জনের প্রাণহানি ঘটে। ট্রেনে কাটা পড়েও নিহত হয়েছেন একাধিক মানুষ। এছাড়াও লাইনচ্যুত ও ইঞ্জিন বিকল হওয়ার জন্য দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে উত্তরাঞ্চল ও ঢাকার যাত্রীদের। 

আলোচিত দুর্ঘটনা: 
১. ২০১৯ সালের ১৩ এপ্রিল কামারখন্দ উপজেলার কয়েলগাঁতী এলাকায় অরক্ষিত রেলক্রসিং পার হওয়ার সময় কলকাতা থেকে ঢাকাগামী মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ হারায় পিকআপ ভ্যানের চালকসহ তিন গরু ব্যবসায়ী। এ ঘটনায় মারা যায় দুটি গরু।

 

২. ১৫ জুলাই উল্লাপাড়া উপজেলার সলপ স্টেশন পার হয়ে কামারখন্দ-উল্লাপাড়া আঞ্চলিক সড়কের অরক্ষিত রেলক্রসিংয়ে বিয়ের মাইক্রোবাসকে ধাক্কা দেয় রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেন। এ সময় ইঞ্জিনের সঙ্গে মাইক্রেবাসটিকে ছেঁচড়ে প্রায় ৫০ মিটার নেওয়ার পর থেমে যায় ট্রেন। এ দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলে বর-কনেসহ ১০ জন এবং চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় আরও ৫ যাত্রী। দুর্ঘটনার পরদিন পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে পাকশী বিভাগ থেকে অরক্ষিত রেলক্রসিংয়ে অস্থায়ীভাবে বাঁশের তৈরি গেট নির্মাণ করে দুজন ওয়েম্যান নিয়োগ করা হয়। তবে সেখানে এখনও স্থায়ী কোনো গেট নির্মাণ করা হয়নি।  

ট্রেন দুর্ঘটনা।  ছবি: বাংলানিউজ৩. গত ১৪ নভেম্বর উল্লাপাড়া রেলওয়ে স্টেশন পাওয়ার দুশো মিটার আগে ঢাকা থেকে রংপুরগামী রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের ইঞ্জিনসহ ৮টি বগি লাইনচ্যুত হয়। এ সময় ইঞ্জিনসহ দুটি বগি আগুনে পুড়ে যায়। এ দুর্ঘটনায় ৫ জন আহত হলেও কেউ মারা যাননি। তবে দুর্ঘটনার ২৯ ঘণ্টা পর এ রুটে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। দুর্ঘটনা তদন্তে রেলওয়ে বিভাগ ও জেলা প্রশাসন পৃথক তিনটি কমিটি গঠন করে। ইতোমধ্যে রেলপথের লুপ লাইনের ত্রুটি উল্লেখ করে প্রায় একই ধরনের প্রতিবেদন জমা দিয়েছে কমিটিগুলো।  

এছাড়াও ২৭ মে সিরাজগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনটি কয়েকদফায় বিকল হয়ে দুর্ভোগে পড়ে ৬ শতাধিক যাত্রী। ২৮ নভেম্বর ঝাঐল ওভার ব্রিজের পরে রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা রাজশাহী এক্সপ্রেস ট্রেনটি ইঞ্জিন বিকল হয়ে কয়েকঘণ্টা ঢাকা-উত্তরাঞ্চলের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ থাকে। ৪ ডিসেম্বর মুলিবাড়ী রেলক্রসিংয়ের কাছে মালবাহী ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হওয়ার কারণে প্রায় ২ ঘণ্টা অচল হয়ে যায় ট্রেন যোগাযোগ।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৩০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৯
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।