ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৫ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

রাজশাহীতে পালিত হচ্ছে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
রাজশাহীতে পালিত হচ্ছে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস

রাজশাহী: শহীদ বুদ্ধিজীবীদের বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করছেন রাজশাহীর সর্বস্তরের মানুষ। দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) পালিত হচ্ছে দিবসটি।

যথাযোগ্য মর্যাদায় বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে সূর্যদয়ের সঙ্গে সঙ্গে রাজশাহীর সব সরকারি-বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়। বাদ জোহর শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মহানগরীর বিভিন্ন মসজিদে কোরআনখানি ও বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

 

শনিবার সকালে রাজশাহী কোর্ট শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন রাজশাহী বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বধ্যভূমি ও শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিফলকে শহীদদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও পালন করা হয় এক মিনিট নীরবতা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেরাজ উদ্দিন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি আব্দুল ওয়াদুদ দারা, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি ড. পিএম শফিকুল ইসলাম, দুর্গাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও দুর্গাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম, গোদাগাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ প্রমুখ।

এদিকে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে দিনটি পালন করা হচ্ছে। ভোরে প্রধান প্রধান ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়। সকালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়া, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক একেএম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এমএ বারীসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে বুদ্ধিজীবীদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন তারা। এরপরই শহীদ স্মৃতি সংগ্রহশালা, বিভিন্ন হল প্রশাসন, বিভাগ, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, স্বেচ্ছাসেবী, রাজনৈতিক, পেশাজীবী সমিতি, সংগঠন, রাবি সাংবাদিক সমিতি বুদ্ধিজীবী স্মৃতিফলকে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও নীরবতা পালন করে। বাদ জোহর শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদে দোয়া হবে।

দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে শহীদ মিনার ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয় গণকবর স্মৃতিস্তম্ভ, লাইব্রেরি চত্বরে স্থাপিত তিনজন শহীদ শিক্ষক অধ্যাপক হবিবুর রহমান, অধ্যাপক মীর আব্দুল কাইয়ূম ও অধ্যাপক সুখরঞ্জন সমাদ্দারের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।  

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের অপর কর্মসূচিতে সন্ধ্যা ৬টায় শেখ রাসেল মডেল স্কুলের সামনের পুকুর পাড়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস স্মরণে প্রামাণ্য নাট্য ‘আলোছায়া১৪’ প্রদর্শিত হবে। এছাড়া সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ স্মৃতি সংগ্রহশালা দর্শকদের জন্য খোলা রাখা হয়।  

এদিকে সন্ধ্যায় মহানগরীর শ্রীরামপুর বধ্যভূমি ও রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে আওয়ামী লীগ, ওয়ার্কার্স পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা, মুক্তিযোদ্ধা, পেশাজীবী, সামাজিক ও চেতনায় একুশসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের উদ্যোগে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের কর্মসূচি রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
এসএস/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa