bangla news

ভারতে কারাভোগ শেষে দেশে ফিরলেন ১৯ জন

উপজেলা করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১২-১২ ৯:১১:৫১ পিএম
ফেরত আসা বাংলাদেশি যুবকরা। ছবি: বাংলানিউজ

ফেরত আসা বাংলাদেশি যুবকরা। ছবি: বাংলানিউজ

বেনাপোল (যশোর): ভালো কাজের প্রলোভনে ভারতে পাচার হওয়া পর বিভিন্ন মেয়াদে কারাভোগ শেষে ১৯ যুবককে ট্রাভেল পারমিটে বাংলাদেশে ফেরত পাঠিয়েছে ভারত সরকার।

বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতীয় পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ তাদের বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

ফেরত আসা যুবকরা হলেন- শেরপুর জেলার রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে আলমগীর হোসেন, জয়নাল আবেদিনের ছেলে বিজয় মিয়া, হাসেম আলীর ছেলে মুক্তার মিয়া, চাঁন মণ্ডলের ছেলে জাহিদুল ইসলাম, চানমিয়ার ছেলে সুমন মিয়া, শাহিন মিয়ার ছেলে আবুল কালাম, জলিলের ছেলে আশিক মিয়া, আফিল উদ্দিনের ছেলে ছমির মিয়া, রেজাউদ্দিনের ছেলে লালমিয়া, আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মঞ্জুরুল হক, লালমনিরহাট জেলার আমিনুর রহমানের ছেলে আরিফুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ জেলার শাহজাহান খানের ছেলে সজিব হোসেন, তার সহোদর দোলন হোসেন, গাজীপুর জেলার মেরাজ আলীর ছেলে কবির হোসেন, শাহেদ আলীর ছেলে হাবিবুর রহমান, সৈয়দপুর জেলার সরাফাত হোসেনের ছেলে খালিদ বিন খোকন, মাদারীপুর জেলার খালেক মিয়ার ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন, দিনাজপুর জেলার জয়নাল আবেদিনের ছেলে রফিকুল ইসলাম, নরসিংদী জেলার বিল্লাল হোসেনের ছেলে নজরুল ইসলাম। এদের বয়স ১৮-৩৬ বছর পর্যন্ত।

বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ জানায়, ফেরত আসা বাংলাদেশি যুবকরা বিভিন্ন সীমান্ত পথে দুই বছর আগে ভারত পাড়ি জমান। সেখানে তারা তামিলনাড়ু প্রদেশের ক্রিকুট শহরের আন্থনী গার্মেন্টসে চাকুরি করতেন। ওই গার্মেন্টস থেকে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে। পরে পুলিশ তাদের আদালতের মাধ্যেমে চেন্নাই সেন্ট্রাল জেলে রাখে। পরে দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যোগাযোগের মাধ্যমে তাদের ট্রভেল পারমিটে দেশে ফেরত পাঠায় ভারত সরকার।

বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান বাংলানিউজকে জানান, ফেরত আসা বাংলদেশিদের আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাদের নিজ নিজ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বেনাপোল
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-12-12 21:11:51