bangla news

মানবতার দেয়ালে বস্ত্রহীনদের জন্য পুরনো কাপড় 

আবাদুজ্জামান শিমুল, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১১-১৮ ২:৩৫:১৬ পিএম
মানবতার দেয়াল। ছবি: বাংলানিউজ

মানবতার দেয়াল। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: দেয়ালটি 'মানবতার দেয়াল' হিসেবে পরিচিত। দেয়ালে লেখাও আছে সেটি। শাহবাগ নবাব হাবিবুল্লা রোডে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) রেডিওলজি বিভাগের বিপরীতে একটি পাঁচ তলা বাড়ির বাউন্ডারি ঘেরা রাস্তা সংলগ্ন দেয়ালে এমন একটি লেখাই চোখে পড়ে।

লেখা পড়ে ও সেখানে কিছু পুরনো কাপড় ঝুলতে দেখে সেটির উদ্দেশ্য বুঝতে আর বাকি রইলো না। হতদরিদ্রের জন্য এখানে কিছু পুরনো কাপড় সংগ্রহ করে রাখা হয়। সেখানে কয়েকটি আংটার সঙ্গে পুরনো কিছু কাপড় ঝুলে থাকতে দেখা যায়। মানবতার দেয়াল লেখাটির ঠিক নিচে লেখা আছে- 'আপনার যা প্রয়োজন নেই তা রেখে যান। আপনার যা প্রয়োজন তা নিয়ে যান।'

এই মানবতা দেয়ালে গরিবদের জন্য এলাকাবাসী কিছু কাপড় ঝুলিয়ে রাখে প্রতিদিন। এই ঝুলিয়ে রাখা পুরনো কাপড় থেকে বস্ত্রহীন হতদরিদ্ররা যার যেটি প্রয়োজন মনে করেন, সেটি নিতে পারেন। এ জন্যই এর নাম দেওয়া হয়েছে মানবতার দেয়াল।

ওই স্থানের পাশেই ডাব বিক্রেতা আলী রাজের সঙ্গে কথা হয় বাংলানিউজের। তিনি জানান, এখানে গত দুই বছর ধরে ডাব বিক্রি করেন তিনি। গরিবদের জন্য এলাকাবাসী তাদের অপ্রয়োজনীয় কাপড়চোপড় এখানে ঝুলিয়ে রাখেন।

প্রতিদিনই এলাকাবাসীদের কেউ না কেউ বাসা থেকে পুরনো কাপড়গুলো এখানে এনে ঝুলিয়ে রাখেন। যাদের দরকার হয় তারা পছন্দ মতো এখান থেকে কাপড় নিয়ে যান। তবে, বেশিরভাগ নেওয়ার দৃশ্য চোখে পড়ে রাতের বেলায়। কিছু গরিব মানুষ ও রিকশাচালক এসে নিয়ে যান।

তিনি আরও জানান, এখন শীত চলে এসেছে প্রায়। দেখতেই পাচ্ছেন কিছু পাতলা কাপড়ের মধ্যে কিছু গরম কাপড়ও আছে।

এসময় হতদরিদ্রদের শীতের হাত থেকে বাঁচার জন্য এখানে এলাকাবাসীরা গরম কাপড় ঝুলিয়ে রাখেন। আবার গরমের সময় হালকা কাপড়-চোপড় এখানে ঝুলিয়ে থাকতে দেখা যায়। এছাড়া মানবতার দেয়াল সম্পর্কে অনেকেই অবগত। তারা অন্য এলাকা খেকেও কাপড় এনে এখানে ঝুলিয়ে রাখেন।

ওই এলাকার ইকবাল নামে এক ব্যক্তি জানান, এলাকাবাসী প্রায় প্রতিদিনই কেউ না কেউ এখানে কাপড় ঝুলিয়ে রাখেন। যাদের দরকার হয় তারা স্বেচ্ছায় এখান থেকে বেছে বেছে সেগুলো নিয়ে যান। এভাবেই এই মানবতার দেয়ালের কার্যক্রম চলতে থাকে। 

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৮, ২০১৯
এজেডএস/এফএম

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-11-18 14:35:16