bangla news

ভিক্ষুকদের বসতভিটে উদ্ধার করে দিলেন এসিল্যান্ড

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১১-০৬ ৪:৫৫:৫৫ এএম
ভিক্ষুকদের বসতভিটে উদ্ধার করে দেন এসিল্যান্ড। ছবি: বাংলানিউজ

ভিক্ষুকদের বসতভিটে উদ্ধার করে দেন এসিল্যান্ড। ছবি: বাংলানিউজ

নেত্রকোনা: সরকার থেকে বন্দোবস্ত পাওয়ার পর দখল হয়ে যাওয়া বৃদ্ধা হাছেন বানু ও জয় বানু ভিক্ষুকের বসতভিটে উদ্ধার করে দিয়েছেন নেত্রকোনা সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. বুলবুল আহমেদ।

মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার দক্ষিণ বিশিউড়া ইউনিয়নের ষোলপাই গ্রামে ভিক্ষুকদের ভিটেমাটি উদ্ধার অভিযান চালান তিনি।

দুই বছর আগে সরকার থেকে হাছেন ও জয় বানু থাকার জন্য দুই কাঠা (২০ শতাংশ) জমি বন্দোবস্ত পান। কিন্তু তা জবরদখল করে নেন স্থানীয় আব্দুল হেকিম। দু’বছর ধরে অর্থাৎ বন্দোবস্ত পাওয়ার পর থেকেই হেকিম অবৈধ স্থাপনা দাঁড় করিয়ে দখল করে রেখেছেন।

এদিকে, বসতভিটের অধিকার নিয়ে ঘর বাঁধতে গেলে বৃদ্ধাদের ভয়ভীতি দেখানোর পাশাপাশি বাড়ির সব সদস্যদের নিয়ে লাঞ্ছিত করে আসছিলেন তিনি। এমন পরিস্থিতিতে হাছেন মানুষের পাশে পাশে ঘুরেন আর পথেঘাটে রাত্রিযাপন করেন। এরইমধ্যে কষ্ট সহ্য করতে না পেরে মারা যান জয় বানু! 

বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে গিয়ে হেকিমকে জমি ফিরিয়ে দিতে এবং অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিতে নির্দেশ দেন উপজেলার সহকারী কমিশনার। এতেও কাজ হয়নি। বরঞ্চ তারা তাকে ভয়ভীতি দেখানোর পরিমাণ বাড়িয়ে দেন।     
 
পরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঘটনাস্থলে গিয়ে বসতভিটে উদ্ধার করা হয়। এর আগে প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে বাড়ি ছেড়ে হেকিম ও তার পরিবারের সদস্যরা পালিয়ে যান।

এ বিষয়ে এসিল্যান্ড বুলবুল আহমেদ জানান, বৃদ্ধার হাতে ঘর বানানোর মতো টাকা-পয়সা নেই। সেক্ষেত্রে জেলা প্রশাসকের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

হাছেন বাংলানিউজকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর এসিল্যান্ডের ভালো করুন আল্লাহ। শেষ বয়সে সড়কে পড়ে মরার চেয়ে নিজের ঘরের ভেতর যেন মরতে পারি। 

উদ্ধার অভিযানে নেত্রকোনা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. নাজমুল হুদা, বিল্লাল হোসেনসহ পুলিশ সদস্যরা অংশ নেন।

বাংলাদেশ সময়: ০৪৫১ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৬, ২০১৯
ইএআর/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   নেত্রকোণা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-11-06 04:55:55