ঢাকা, শনিবার, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৮ আগস্ট ২০২০, ১৭ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

শিবপুরে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণ, আটক ১

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩, ২০১৯
শিবপুরে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণ, আটক ১

নরসিংদী: নরসিংদীর শিবপুর উপজেলায় চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে এক কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় রাকিব মিয়া (২০) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। 

শুক্রবার (১ নভেম্বর) রাতে উপজেলার সৃষ্টিগড় হাজিবাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আটক রাকিব এ গ্রামেরই বাসিন্দা।

এ ঘটনায় আরিফ (২৫) নামে আরও এক যুবক পলাতক রয়েছে।

শিবপুর থানাপুলিশ জানায়, কলেজে একাদশ শ্রেণীতে পড়ুয়া ভিকটিম রায়পুরা এলাকার এক ভ্যানচালকের মেয়ে। কিছুদিন আগে মোবাইল ফোনে কল দিয়ে মিথ্যা পরিচয়ে আরিফ মিয়া (২৫) তাকে চাকরির প্রলোভন দেখান। তিনি নিজেকে একটি কোম্পানির মালিক বলে পরিচয় দেন। এরই এক পর্যায়ে চাকরীর আশ্বাস দিয়ে গত শুক্রবার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে আরিফ মেয়েটিকে দেখা করতে বলেন। সেই অনুসারে আরিফের সঙ্গে দেখা করতে মেয়েটি শিবপুরের বড়ইতলা এলাকার স্যামসাং কারখানার সামনে যায়। সাক্ষাতে ওই যুবক মেয়েটিকে সেলসম্যানের কাজের প্রস্তাব দেন। পরে তারা একটি মাইক্রোবাসে করে কিশোরগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় ঘোরাঘুরি করে। সে সময় আরিফের সহযোগী রাকিবও তাদের সঙ্গে ছিল। ঘোরাঘুরির এক পর্যায়ে সন্ধ্যার দিকে অপরিচিত জায়গায় নিয়ে যেতে চাইলে মেয়েটি চিৎকার শুরু করে।

সে সময় তাকে মারধর করা হয়, এবং রাত নেমে এলে হাজীবাগান এলাকায় নিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে লাথি দিয়ে গাড়ি থেকে ফেলে মুখ বাঁধা হয়। পরে এলাকার একটি নির্জন জঙ্গলে নিয়ে পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে দুই যুবক। রাতভর নির্যাতন শেষে সকালে মেয়েটিকে জঙ্গলের পাশে একটি বাড়িতে নিয়ে আটকে রাখা হয়। পরে সেখান থেকে কৌশলে ওই শিক্ষার্থী পালিয়ে গিয়ে স্থানীয় একজনের সহায়তায় শিবপুর মডেল থানায় যায়। পরবর্তীতে থানা থেকে তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়।  

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা আজিজুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় শনিবার বিকেলে সৃষ্টিগড় এলাকা থেকে গাড়িসহ রাকিব নামে এক অভিযুক্তকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। ধর্ষণের শিকার মেয়েটির মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে রাকিবকে আটক করা হয়। আরেক অভিযুক্ত আরিফ পলাতক রয়েছে।

ভিকটিমের মা জানান, শুক্রবার চাকরি দেওয়ার কথা বলে আরিফ ওরফে রনি মেয়েকে ডেকে পাঠায়। কিন্তু সন্ধ্যার পর রাত পার হয়ে যাওয়ার পরও মেয়ের কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। সারারাত মোবাইলে চেষ্টা করেও পাইনি। শনিবার দুপুরে মেয়েকে হাসপাতালে নেওয়ার পর আমরা ঘটনা জানতে পারি।

বাংলাদেশ সময়: ০৭৪৩ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৩, ২০১৯
এইচজে 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa