bangla news

গাছ উপহার পেলেন ছাদবাগানের ক্ষতিগ্রস্ত সেই মালিক

সাভার করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-২৩ ৪:২৪:৫৫ পিএম
ভুক্তভোগী আহসান হাবিবের বাসায় গিয়ে গাছ উপহার দেয় ‘গ্রিন সেভার্স অ্যাসোসিয়েশন’। ছবি: বাংলানিউজ

ভুক্তভোগী আহসান হাবিবের বাসায় গিয়ে গাছ উপহার দেয় ‘গ্রিন সেভার্স অ্যাসোসিয়েশন’। ছবি: বাংলানিউজ

সাভার (ঢাকা): সাভারের সিআরপি রোডের একটি বাড়ির ছাদবাগানের ক্ষতিগ্রস্ত সেই মালিক শতাধিক গাছ উপহার পেয়েছেন। 

বুধবার (২৩ অক্টোবর) দুপুরে ভুক্তভোগী আহসান হাবিবের বাসায় গিয়ে এ গাছ উপহার দেয় পরিবেশবাদী সংগঠন ‘গ্রিন সেভার্স অ্যাসোসিয়েশন’।

মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় হাবিবের পরিবারের ছাদবাগানের গাছ নির্বিচারে কেটে ফেলেন খালেদা আক্তার লাকি (৪৫) নামের এক নারী। দা হাতে নিয়ে মারমুখি ভঙ্গিতে নির্বিচারে গাছ কেটে ফেলার ঘটনাটি ভিডিও আকারে ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকে। এতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় ওঠে। পরে সাভার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের হলে সকালে সেই নারীকে আটক করে পুলিশ।

গ্রিন সেভার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি আহসান রনি বলেন, যেভাবে গাছগুলোকে কাটা হয়েছে, সত্যি আমরা মর্মাহত। আমরা এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি আমরা মামলা করারও প্রস্তুতি নিচ্ছি। যাদের গাছ কাটা হয়েছে তাদের দুঃখ লাঘবে আমরা কিছু গাছ তাদের হাতে তুলে দিয়েছি। তাদের সুন্দর একটি বাগান সাজিয়ে দিতে চাই।

এদিকে বিভিন্ন পরিবেশবাদী সংগঠন ওই বাড়ি পরিদর্শন করে গাছ কাটার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

‘মানসিক ভারসাম্যহীন’ দাবি করা হচ্ছে গাছ কেটে ফেলা লাকিকে 
অন্যদিকে, সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, গাছ কেটে ফেলার অভিযোগে সকালে ওই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে। তাকে ‘মানসিক ভারসাম্যহীন’ বলা হচ্ছে। যদিও মানসিক ভারসাম্যহীনতার কোনো কাগজ-পত্র পাইনি, তাই আমরা এটা নিশ্চিত করে বলতে পারছি না। এ বিষয়ে আটক নারীর বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

গাছ কেটে ফেলার মুহূর্তটি ভিডিও আকারে ফেসবুকে পোস্ট করেন আহসান হাবিবের মেয়ে সুমাইয়া হাবিব। সুমাইয়া তার পোস্টে বলেন, ‘আমার মা গাছ অনেক পছন্দ করে, তাই ছাদের এক কোণায় আমরা কিছু গাছ লাগাইছিলাম। আর এই নারী আমাদের সঙ্গে শত্রুতা করে আমাদের লাগানো গাছগুলা কেটে ফেলল। এই বিল্ডিংয়ে আমরা ২টা ফ্ল্যাট কিনেছি। সবাই যার যার ক্র‍য়কৃত ফ্ল্যাটে থাকে।’

‘ছাদে সবারই অধিকার আছে। আমরা আমাদের অধিকার থেকে কিছু গাছ লাগিয়েছি ছাদের একটা কোণায়। কারণ আমরা ভাবতেও পারিনি গাছ মানুষ অপছন্দ করতে পারে। গাছ তো সৌন্দর্য বাড়ায়। আর তারা বলে আসছে আমাদের গাছ নাকি ছাদের পরিবেশ নষ্ট করে দিছে। তারা অকারণে অন্যায়ভাবে আমাদের জীবন্ত এবং ফল ধরন্ত গাছগুলি কেটে ফেললো। আবার তার ছেলে কিছু ১০/১২ জন মাস্তান নিয়ে আসছে আমাদের ওপর হামলা করার জন্য। আমাদের একটাই অপরাধ আমরা গাছ ভালোবাসি। তাই শখ করে গাছ লাগিয়েছিলাম। আমরা তো অন্যের জায়গায় গাছ লাগাই নাই।’

সুমাইয়ার ভিডিও পোস্টের পর লাকির ছেলে লিখন ফেসবুক লাইভে এসে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন। তিনি বলেন, ‘এক মাস আগে গাছ কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত হয়েছে, কিন্তু তিনি গাছ গুলো কাটছিলেন না। এগুলো তার পারসোনাল গাছ। শাকসবজি, তরকারির গাছ। এগুলো তো ফুল গাছ না। ফুল গাছ হলে কথা ছিল। আপনারা ভিডিও দেখে জাজ করতেছেন। ভিডিওর আগে-পরে কিছু না জেনে আমাকে আর আমার আম্মুকে গালিগালাজ করছেন- এটা ঠিক হচ্ছে না।’

বাংলাদেশ সময়: ১৬২২ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৩, ২০১৯
এইচএ/

** ছাদবাগানের গাছ কেটে ফেলা সেই নারী আটক

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-23 16:24:55