bangla news

তামাক সচেতনতায় পুরস্কার পেলেন বাংলানিউজের শরীফ সুমন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-২৩ ১:২৫:০১ পিএম
অতিথিদের হাত থেকে পুরস্কার নিচ্ছেন শরীফ সুমন, ছবি: শাকিল আহমেদ

অতিথিদের হাত থেকে পুরস্কার নিচ্ছেন শরীফ সুমন, ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: প্রতিবেদন তৈরির মাধ্যমে ধূমপান এবং তামাক নিয়ন্ত্রণে সচেতনতা সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় ‘প্রজ্ঞা তামাক নিয়ন্ত্রণ সাংবাদিকতা পুরস্কার-২০১৯’ পেয়েছেন বাংলানিউজের সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট শরীফ সুমন। এছাড়া আরও দু’জন সাংবাদিকও পেয়েছেন এ পুরস্কার। তারা হলেন-দৈনিক প্রথম আলোর সাংবাদিক সুহাদা আফরিন ও সময় টেলিভিশনের মামুন আব্দুল্লাহ। 

বুধবার (২৩ অক্টোবর) রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে প্রজ্ঞা (প্রগতির জন্য জ্ঞান) ও অ্যান্টি টোব্যাকো মিডিয়া অ্যালায়েন্স (আত্মা) যৌথভাবে এ তামাক নিয়ন্ত্রণ সাংবাদিকতা পুরস্কারের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের হাতে এবছরের পুরস্কার তুলে দেন। মোট ১৪টি রিপোর্ট নির্বাচিত করা হয়েছিল যাচাই-বাছাইয়ের জন্য। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য (ভিসি) আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকসহ দশজনের জুরি বোর্ড তার মধ্যে থেকে তিনজনকে সেরা প্রতিবেদক হিসেবে নির্বাচিত করেন।

এ সময় রাজশাহী অঞ্চলে কর্মরত বাংলানিউজের সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট শরীফ সুমন বলেন, কাজের পর প্রাপ্তি বা পুরস্কার সেই কাজের প্রতি দায়িত্ববোধ আরও বাড়িয়ে দেয়। তামাকজাত পণ্যের প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে থেকে যে লড়াই করা যায় তা প্রমাণিত। এ জন্য এ লড়াইয়ে আমি অব্যাহত থাকবো। তাছাড়া পুরস্কার দেওয়ায় জুরি বোর্ডকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানান তিনি। তিনি বলেন, ঢাকার কেন্দ্রীয় সাংবাদিক না হয়েও পুরস্কার পেয়েছি। এতে প্রমাণিত যে, কাজটাই আসলে বড় সেটা যেখান থেকেই হোক।

অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি এবংইন্টার-পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের (আইপিইউ) সভাপতি সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী, থাইল্যান্ড থামাসাত ইউনিভার্সিটি হেড অব গ্লোবাল রিসার্চ অ্যান্ড অ্যাডভোকেসি ড. মেরি আসুন্তা, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফজেইউ) সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল, ক্যাম্পেইন ফর টোবাকো ফ্রি কিডসের (সিটিএফকে) বাংলাদেশ কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর, গ্লোবাল হেলথ অ্যাডভোকেসি ইনকিউবেটর মুহাম্মদ রুহুল কুদ্দুস, সাংবাদিক মর্তুজা হায়দার লিটন, জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের ক্যান্সার ইপিডেমিওলজি বিভাগের প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবুল্লাহ তালুকদার রাসকিন প্রমুখ।

এর আগে অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) তামাক কোম্পানির নিয়ন্ত্রণে আন্তর্জাতিক তামাক নিয়ন্ত্রণ চুক্তি ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন টোব্যাকো কন্ট্রোল (এফসিটিসি) আর্টিকেল ৫ দশমিক ৩ বাস্তবায়ন বিষয়ক গবেষণা ফল প্রকাশ করা হয়।

এতে জানানে হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০৪০ সালের আগেই তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার দীর্ঘমেয়াদী একটি লক্ষ্য নির্ধারণ করেছেন। এরই মধ্যে তিন বছর অতিবাহিত হলেও তামাক নিয়ন্ত্রণে ধীর গতির কারণে নির্ধারিত সময়ে এ লক্ষ্য অর্জন কঠিন হয়ে পড়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এ অবস্থায় তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে সহায়তার লক্ষ্যে এফসিটিসি আর্টিকেল ৫ দশমিক ৩ বাস্তবায়ন বিষয়ক একটি গবেষণা প্রজ্ঞা’র পক্ষ থেকে সম্প্রতি সম্পন্ন করা হয়েছে। যা আজ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৩০৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৩, ২০১৯
এমএএম/ওএইচ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-23 13:25:01