bangla news

গাজীপুরে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-১৮ ১১:০৪:২৯ এএম
ছবি: প্রতীকী

ছবি: প্রতীকী

গাজীপুর: গাজীপুর সদর উপজেলার বিকে বাড়ি এলাকায় একটি জঙ্গল থেকে লুনা আক্তার (১৫) এক কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) সকালে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। লুনা লালমনিরহাটের পাটগ্রাম থানার কুলসিবাড়ি এলাকার নবী উদ্দীনের মেয়ে। সে ছোটবেলা থেকে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বাহাদুরপুর এলাকায় তার মামীর সঙ্গে থাকতো এবং স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতো। 

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত লুনার মামী আকলিমা বেগম ও তার ছেলে রবিউল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ। 

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) রাতে মামীর বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে লুনা। পরে তার মামী ও মামাতো ভাই মরদেহ বিকে বাড়ি এলাকায় একটি জঙ্গলে ফেলে দেয়। এক পর্যায়ে স্থানীয়রা ঘটনাটি পুলিশে জানায়। 

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত লুনার মামী আকলিমা ও মামাতো ভাই রবিউলকে আটক করে। এসময় তাদের দেওয়া তথ্য মতে, ওই জঙ্গল থেকে লুনার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তবে ঘটনাটি সন্দেহজনক। এটি হত্যাকাণ্ড হতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। 

গাজীপুর মহানগর সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. শহিদুল ইসলাম জানান, নিহত লুনা ছোটবেলা থেকে তার মামীর কাছে থাকতো। জিজ্ঞাসাবাদে তার মামী পুলিশকে জানায়, রাতে লুনাকে গালিগালাজ করা হয়। পরে সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। এসময় ভয় পেয়ে তার মামী ও মামাতো ভাই মিলে মরদেহ ওই জঙ্গলে ফেলে দেয়। বিষয়টি সন্দেহজনক হওয়ায় নিহত লুনার মামী ও মামাতো ভাইকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। নিহত লুনার গলায় দাগ রয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে এটি হত্যা, নাকি আত্মহত্যা।  

বাংলাদেশ সময়: ১১০২ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৮, ২০১৯
আরএস/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   মরদেহ উদ্ধার গাজীপুর
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-18 11:04:29