bangla news

স্ত্রীসহ ২ নারীকে ভারতে পাচারের দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-১৫ ৮:৫৭:৩৫ পিএম
যাবজ্জীবন/প্রতীকী ছবি

যাবজ্জীবন/প্রতীকী ছবি

সাতক্ষীরা: সাতক্ষীরায় স্ত্রীসহ দুই নারীকে ভারতে পাচারের অপরাধে স্বামী পঙ্কজ বিশ্বাসকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। 

মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) সাতক্ষীরা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক হোসনে আরা আক্তার এ রায় ঘোষণা করেন।

সাজাপ্রাপ্ত আসামি পঙ্কজ বিশ্বাস যশোরের চাঁচড়া রূপদিয়া এলাকার আনন্দ বিশ্বাসের ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, আসামি পঙ্কজ বিশ্বাস শ্যামনগর উপজেলার গোদাড়া গ্রামে রাজমিস্ত্রির কাজ করার সুবাদে ওই গ্রামের আব্দুল খালেক গাজীর মেয়ে রহিমা খাতুনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এরপর পঙ্কজ মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করে রহিমাকে বিয়ে করার পর সেখানে ঘরজামাই হিসেবে বসবাস শুরু করে। একপর্যায়ে তিনি ২০০৮ সালের ৪ মার্চ স্ত্রী রহিমা ও তার চাচাতো বোন হাবিবুল্লাহ গাজীর মেয়ে নার্গিস পারভীনকে নিয়ে তার গ্রামের বাড়ি যশোরে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে তাদের ভারতে পাচার করে দেয়।

অনেক খোঁজাখুঁজির পর রহিমার বাবা খালেক গাজী বাদী হয়ে আসামি পঙ্ক্জ বিশ্বাসসহ ৬ জনের নামে ২০০৮ সালের ১৪ মার্চ শ্যামনগর থানায় একটি মানবপাচার মামলা দায়ের করেন। এরপর দীর্ঘ তদন্ত শেষে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আরিফ ১৩ জনের নামে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

মঙ্গলবার এ মামলায় ছয়জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ ও নথি পর্যালোচনা করে আসামি পঙ্কজ বিশ্বাসের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত তাকে এ সাজার আদেশ দেন।

তবে, এ মামলার অন্যান্য আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাদের বেকসুর খালাস দিয়েছেন।

সাতক্ষীরা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট জহুরুল হায়দার বাবু বাংলানিউজকে জানান, এ মামলার আসামিরা পলাতক রয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৫, ২০১৯
এসএইচ   

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-15 20:57:35