bangla news

প্রধানমন্ত্রী ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ উদ্বোধন করবেন বুধবার

ফজলে ইলাহী স্বপন, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-১৫ ৮:৫৩:৫৪ পিএম
কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস

কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস

কুড়িগ্রাম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার (১৬ অক্টোবর) কুড়িগ্রামবাসীর বহু আকাঙ্খিত ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ আন্তঃনগর ট্রেনের উদ্বোধন করবেন। এরই মধ্যে উদ্বোধনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে রেল বিভাগ। কুড়িগ্রাম-ঢাকা-কুড়িগ্রাম রুটে প্রথমবারের মতো নতুন এ আন্তঃনগর ট্রেন উদ্বোধণের খবরে জেলাজুড়ে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে নতুন এ আন্তঃনগর ট্রেনটির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। উদ্বোধনের পর বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) থেকে ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ আন্তঃনগর ট্রেনের বাণিজ্যিকভাবে যাত্রা শুরু হবে।

মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) বিকেলে কুড়িগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে রেলপথমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজন ট্রেনটির উদ্বোধনের সার্বিক প্রস্তুতি পরিদর্শন করেন। উদ্বোধন উপলক্ষে কুড়িগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন রেলপথমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজন, কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাবেক সংসদ সদস্য মো. জাফর আলী, জেলা প্রশাসক মোছা. সুলতানা পারভীন, পুলিশ সুপার (এসপি) মহিবুল ইসলাম খানসহ রেল বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীরা।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, বন্ধের দিন (বুধবার) ছাড়া ট্রেনটি সপ্তাহে ৬ দিন সকাল ৭টা ২০ মিনিটে কুড়িগ্রাম রেলস্টেশন থেকে ছেড়ে বিকেল ৫টা ২৫ মিনিটে ঢাকায় পৌঁছাবে এবং ঢাকার কমলাপুর স্টেশন থেকে রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে ছেড়ে ৬টা ২০ মিনিটে কুড়িগ্রাম স্টেশনে পৌঁছাবে। ট্রেনটি ১৪টি বগি নিয়ে যাতায়াতে রংপুর-বদরগঞ্জ-পার্বতীপুর-জয়পুরহাট-সান্তাহার-নাটোর-মাধনগর-টাঙ্গাইল-মৌচাক-বিমানবন্দর এ ১০টি স্টেশনে যাত্রী ওঠানামায় বিরতি থাকছে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের লালমনিরহাট বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা মো. সাজ্জাত হোসেন বাংলানিউজকে জানান, ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ আন্তঃনগর ট্রেনটি প্রতিদিন ঢাকা-কুড়িগ্রামের ২৮৬ দশমিক ৮ মাইল বা ৪৬১ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেবে। কুড়িগ্রাম থেকে ঢাকা যাত্রায় মোট ৬৫৭টি আসন সুবিধা এবং ঢাকা থেকে কুড়িগ্রাম যাত্রায় ৬৩৮টি আসন সুবিধা থাকবে। শোভন চেয়ার ৫১০ টাকা, এসি চেয়ার ৯৭২ টাকা, এসি সিট ১১৬৮ টাকা এবং এসি বাথ ১৮০৪ টাকা আসন ভাড়া নির্ধারিত হয়েছে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক (পশ্চিমাঞ্চল) মো. হারুন অর রশীদ জানান, কুড়িগ্রাম-ঢাকা আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিসের জন্য ইন্দোনেশিয়া থেকে সদ্য আসা নতুন কোচ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি চলাচল করার পাশাপাশি রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের জন্য বরাদ্দ করা শাটল ট্রেনটিও চলমান থাকায় দু’টি আন্তঃনগর ট্রেনের সুবিধা পাবে কুড়িগ্রামবাসী। 

জেলা প্রশাসক মোছা. সুলতানা পারভীন বলেন, এ অঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের কাঙ্খিত স্বপ্নপূরণ হবে। স্বল্প সময়ে, স্বল্প খরচে এখানকার মানুষ নিরাপদে ঢাকা পৌঁছাতে পারবে। শুধু আন্তঃনগর ট্রেনই নয়-চাওয়ার আগেই এ জেলার উন্নয়নে তথা মানুষের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী তা পূরণ করতে সচেষ্ট থাকেন। বহুল আকাঙ্খিত ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ ট্রেনটিকে ঘিরে এ জেলার মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ঘটবে।

রেলপথমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, ট্রেনটি চালু হলে কুড়িগ্রামবাসীর দীর্ঘদিনের অভিযোগ দূর হয়ে যাবে। সম্ভাব্য সব সমস্যার সংস্কার করে কুড়িগ্রামে রেলের অব্যবস্থা দূর করা হবে বলে জানান রেলমন্ত্রী।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪০ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৫, ২০১৯
এফইএস/ওএইচ/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   কুড়িগ্রাম
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-15 20:53:54