bangla news

মন্ত্রিপরিষদ সচিব হলেন আনোয়ারুল, বিশ্বব্যাংকে শফিউল

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-১৩ ৭:৫৮:৫১ পিএম
খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ও মোহাম্মদ শফিউল আলম

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ও মোহাম্মদ শফিউল আলম

ঢাকা: সেতু বিভাগের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামকে মন্ত্রিপরিষদ সচিব নিয়োগ দিয়েছে সরকার। আর মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমকে বিশ্বব্যাংকের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। 

রোববার (১৩ অক্টোবর) তাদের নিয়োগ দিয়ে আলাদা আদেশ জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সরকারের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ ২৯ অক্টোবর ২০১৯ থেকে বাতিল করে আগামী ১ নভেম্বর অথবা যোগ দেওয়ার তারিখ থেকে পরবর্তী তিন বছর বিশ্বব্যাংকের ওয়াশিংটন প্রধান কার্যালয়ে ‘বিকল্প নির্বাহী পরিচালক’ হিসেবে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের পদমর্যাদায় নিয়োগ দেওয়া হলো।

অপর এক প্রজ্ঞাপনে সেতু বিভাগের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামকে মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়।

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ১৩ নভেম্বর ২০১১ তারিখে সেতু বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে যোগ দেন। তিনি ৩১ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে সচিব পদে ও ১৩ জুলাই ২০১৭ তারিখে সিনিয়র সচিব পদে পদোন্নতি পান। তিনি পদাধিকার বলে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের নির্বাহী পরিচালক। এই পদে যোগ দেওয়ার আগে তিনি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে অতিরিক্ত সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। 

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ১৯৮৩ সালে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে যোগ দেন। তিনি কেন্দ্রীয় ও মাঠ প্রশাসনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি মাঠ প্রশাসনে উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেট, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। 

এছাড়া জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের পরিচালক, জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব এবং উপ-সচিব, ত্রাণ ও পুনর্বাসন অধিদপ্তরের পরিচালক, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব হিসেবেও তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন। বিশ্বব্যাংক, ইউএনএফপিএ, এডিবি, সিআইডিএ, ডিজিআইএস, ইউএনডিপির অর্থায়নে পরিচালিত বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে উপ-পরিচালক, উপ-প্রকল্প পরিচালক, প্রকল্প পরিচালক ও জাতীয় প্রকল্প পরিচালক হিসেবে কাজ করার অভিজ্ঞতাও তার রয়েছে। 

তিনি দাপ্তরিক প্রয়োজনে ইউএসএ, ইউকে, অস্ট্রেলিয়া, সুইডেন, নরওয়ে, দক্ষিণ কোরিয়া, হংকং, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, ভারত, শ্রীলঙ্কা, স্পেন, মরোক্কো, মিশর, তুরস্ক, সৌদি আরব, চীন, জাপান, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি ও কেনিয়া সফর করেছেন। খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ কল্যাণ বিভাগ থেকে বিএসএস (অনার্স) এবং এমএসএস ডিগ্রি অর্জন করেন। ডেভেলপমেন্ট প্ল্যানিংয়ের ওপরে তার একটি পোস্ট গ্রাজুয়েট ডিপ্লোমাও রয়েছে। 

তার স্ত্রী মিস কামরুন নাহার মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে কর্মরত আছেন। পারিবারিক জীবনে তিনি দুই পুত্র সন্তানের জনক। 

মোহাম্মদ শফিউল আলম ১৯৫৯ সালে কক্সবাজার জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮১ সালে ইংরেজিতে এমএ ও ১৯৯০ সালে এলএলবি ডিগ্রি ও পরবর্তীতে যুক্তরাজ্যের বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উন্নয়ন প্রশাসন বিষয়ে এমএসএস ডিগ্রি অর্জন করেন। 

তিনি বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস ১৯৮২ নিয়মিত ব্যাচের একজন সদস্য এবং বিগত ৩৫ বছর ধরে মাঠ প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন পদসহ বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে যথা মাগুরা ও ময়মনসিংহ জেলার জেলাপ্রশাসক, বাংলাদেশ লোকপ্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের এমডিএস, জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের এবং বাংলাদেশ বনশিল্প উন্নয়ন করপোরেশনের চেয়ারম্যান, রাজশাহীর বিভাগীয় কমিশনার, যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব, ভূমি আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান (সচিব) ও  ভূমি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১০ অক্টোবর ২০১৫ সাল থেকে তিনি মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিসেবে কর্মরত।

তিনি যুক্তরাষ্ট্র, ইংল্যান্ড, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, রাশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, ইন্দোনেশিয়া, মরক্কো, নিউজিল্যান্ড, সুইজারল্যান্ড, সুইডেন, স্পেন, ইতালি, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরব, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া,  মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া, মিয়ানমার, শ্রীলঙ্কা, ভুটান, পাকিস্তান, নেপাল,  কানাডা, জার্মানি, চীন, হংকং, কেনিয়া, গায়ানা, পানামা, তুরস্ক, কাতার, হাইতি ও ভারতসহ বিভিন্ন দেশ সফর করেছেন।

তিনি একজন অভিজ্ঞ প্রশিক্ষক ও ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গিসম্পন্ন জনকল্যাণমুখী সরকারি কর্মচারী। সেবাপ্রার্থীদের সার্বিক সেবা দেওয়ার মাধ্যমে এদেশের গরিব, দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানোই তার কর্মজীবনের ব্রত।

 

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৩, ২০১৯
এমআইএইচ/এএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-13 19:58:51