ঢাকা, শুক্রবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

বেদখল ২৪টি মাঠ পর্যায়ক্রমে উদ্ধার করা হবে: আতিক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৯-১২ ১:২৫:০৮ পিএম
সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন ডিএনসিসি মেয়র। ছবি: জিএম মুজিবুর

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন ডিএনসিসি মেয়র। ছবি: জিএম মুজিবুর

ঢাকা: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, বেদখল হওয়া ডিএনসিসির ২৪টি মাঠ পর্যায়ক্রমে উদ্ধার করা হবে। সমাজকে মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে এসব মাঠের প্রয়োজন রয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মোহাম্মদপুর হুমায়ুন রোড সংলগ্ন মাঠের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন, যেসব মাঠ বেদখল হয়ে আছে, খেলার অযোগ্য, সেগুলো ফের খেলাধুলার উপযোগী করে তুলতে হবে। সিটি করপোরেশন সবার সহযোগিতায় পর্যায়ক্রমে এ ধরনের ২৪টি মাঠ উদ্ধার করবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ডিএনসিসি এলাকায় ডেঙ্গু প্রতিরোধে দ্বিতীয় দফায় অভিযান শুরু হবে। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে মোহাম্মদপুর এলাকায় এডিস মশা নিধনে চিরুনি অভিযান চালানো হবে।

আতিকুল ইসলাম বলেন, এ সমাজকে মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে হলে মাঠের কোনো বিকল্প নেই। সবাইকে ঘর থেকে বেরিয়ে মাঠে আসতে হবে।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, আপনাদের জন্য আমরা আধুনিক মাঠ করে দেবো। এখানে থাকবে জিমনেশিয়াম, বাথরুম, খেলার মাঠ। এটি যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব আপনাদের। মাঠ রক্ষণাবেক্ষণের জন্য একটি কমিটি করতে হবে। আমরা সুন্দর কাজ করে দিয়ে গেলাম, কিন্তু সেটি রক্ষণাবেক্ষণ না করলে নষ্ট হয়ে যাবে। তাই আমি মাননীয় সংসদ সদস্যকে অনুরোধ করবো, আপনার তত্ত্বাবধানে একটি কমিটি করে দেবেন, যাতে মাঠটি রক্ষা করা যায়।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-১৩ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান, ৩২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিজানুর রহমান প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৩২৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯
এমএমআই/একে

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-09-12 13:25:08