ঢাকা, বুধবার, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ অক্টোবর ২০১৯
bangla news

পাকুন্দিয়ায় গণধর্ষণ-হত্যা মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৯-০২ ১:৫৩:০৬ এএম
গ্রেপ্তার হওয়া মুরাদুজ্জামান জাহিদ

গ্রেপ্তার হওয়া মুরাদুজ্জামান জাহিদ

কিশোরগঞ্জ: কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় নানার বাড়িতে স্কুলছাত্রী স্মৃতি আক্তার রিমাকে (১৪) গণধর্ষণ ও হত্যা মামলার প্রধান আসামি মুরাদুজ্জামান জাহিদকে (২২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার (০১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কিশোরগঞ্জ শহরের বত্রিশ এলাকার জেলা স্মরণী মোড় থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

গ্রেপ্তার হওয়া মুরাদুজ্জামান জাহিদ পাকুন্দিয়া উপজেলার চরফরাদী গ্রামের খুরশিদ মিয়ার ছেলে। স্কুলছাত্রী রিমাকে অপহরণের পর গণধর্ষণ করে হত্যা মামলার ১ নম্বর আসামি তিনি।

রাতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও পাকুন্দিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম শফিকুল ইসলাম বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এসএম শফিকুল ইসলাম বাংলানিউজকে জানান, আত্মগোপনে থাকা জাহিদ তার এক স্বজনের সঙ্গে দেখা করার জন্য শহরের স্মরণী মোড়ে অবস্থান করছিল। দুপুরে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তিসহ বিভিন্ন মাধ্যমে জাহিদের অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর অভিযান পরিচালনা করে তাকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারের পর মুরাদুজ্জামান জাহিদ এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। এ ব্যাপারে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি। 

নিহত স্মৃতি আক্তার রিমা পার্শ্ববর্তী হোসেনপুর উপজেলার জামাইল গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের মেয়ে ও হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণির ছাত্রী। গত ১৮ জুলাই সকালে পাকুন্দিয়া উপজেলার চরফরাদী ইউনিয়নের গাংধোয়ারচর গ্রামে নানার বাড়ির পাশে পুকুর পাড়ের একটি বরই গাছের ডালে ঝুলন্ত অবস্থায় স্কুলছাত্রী রিমার মরদেহ  উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় পরদিন ১৯ জুলাই রাতে নিহত স্কুলছাত্রীর মা আঙ্গুরা খাতুন বাদী হয়ে পাকুন্দিয়া থানায় রিমাকে অপহরণের পর গণধর্ষণ করে হত্যার অভিযোগ এনে জাহিদ মিয়া, পিয়াস মিয়া, রুমান মিয়া ও রাজু মিয়াসহ চার জনের নামোল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরও ৫-৬ জনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(৩)/৭ ধারায় মামলা (নং-৮) দায়ের করেন।

বাংলাদেশ সময়: ০১৪৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০২, ২০১৯
এসএইচ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-09-02 01:53:06