ঢাকা, বুধবার, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ অক্টোবর ২০১৯
bangla news

ঢামেকে ৪ বছরের শিশুর গলার চেইন ছিনতাই

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৯-০১ ৩:১৪:৪৬ পিএম
রিফাত বাবু। ছবি: বাংলানিউজ

রিফাত বাবু। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পিতা-মাতার সঙ্গে চিকিৎসা করাতে এসে ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে গলায় থাকা সোনার চেইন খুইয়েছে ৪ বছরের শিশু আদিবা। পরে চেইন ছিনতাই করে পালিয়ে যাচ্ছে এ সন্দেহে রিফাত বাবু (৩০) নামের একজনকে আশেপাশে থাকা লোকজন ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

রোববার (১ সেপ্টেম্বর) সকালে সাড়ে ১১টার দিকে ঢামেকের জরুরি বিভাগের পুলিশ বক্সের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, আদিবা (৪) মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ইউনুস আলী ও মনিরা সুলতানার একমাত্র সন্তান। বাবা-মায়ের সঙ্গে সে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এসেছে চিকিৎসার জন্য। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের পুলিশ ক্যাম্পের সামনে এক ছিনতাইকারী তার গলায় থাকা চেইন ছিনতাই করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় আশেপাশের লোকজন ওই ছিনতাইকারীকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

শিশুটির মা মনিরা সুলতানা বলেন, ত্বকে সমস্যার কারণে আদিবাকে চিকিৎসা করাতে হাসপাতালে নিয়ে আসি। হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের সামনে দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলাম। এসময় মেয়ের গলায় থাকা ৫ আনী ওজনের চেইনটি নিয়ে ছিনতাইকারী পালানোর চেষ্টা করে। আমি এ পরিস্থিতি দেখে চিৎকার দেই। পরে আশেপাশের লোকজন তাকে ধরে ফেলে। এসময় তার সঙ্গে থাকা অপর এক ছিনতাইকারী চেইনটি নিয়ে পালিয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, গত এক বছর আগে তাকে চেইনটি উপহার দিয়েছিল তার নানু। ঘটনার সময় আমি আমার মেয়ের হাত ধরে রেখেছিলাম। দিন দুপুরে হাসপাতালের মতো এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটলো। মায়ের সামনেই সন্তানের কোনো নিরাপত্তা নেই।

তবে সন্দেহজনক ছিনতাইকারী রিফাত বাবু (৩০) নিজেকে নির্দোশ বলে দাবি করেছেন। তিনি অ্যালিফেন্ট রোডের এসকে গলি এলাকায় থাকেন। তিনি বিভিন্ন যানবাহনে চিরুনি বিক্রি করেন।

তিনি বলেন, হাসপাতালে এসেছি এক রোগীর চিকিৎসা করাতে। চিৎকার শুনে ভয়ে দৌড়ে পালাচ্ছিলাম তখন লোকজন আমাকে ধরে পুলিশের কাছে নিয়ে আসে।

যদিও কোন রোগীর চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে এসেছিলেন সে সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য তিনি পুলিশকে দেখাতে পারেননি।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) বাচ্চু মিয়া জানান, ওই ছিনতাইকারীকে শাহবাগ থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। যারা ভুক্তভোগী তারাও থানায় গিয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০১, ২০১৯
এজেডএস/এইচএডি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ছিনতাই
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-09-01 15:14:46